প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

আতাউস সামাদের ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকীতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের ফুলেল শ্রদ্ধা

খন্দকার আলমগীর হোসাইন : সাংবাদিক আতাউস সামাদের ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকীতে বুধবার সকালে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) নেতৃবৃন্দ আজিমপুরে তার কবর জিয়ারত ও ফাতেহা পাঠ করেন। এসময় সেখানে ছিলেন বিএফইউজে ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শহিদুল ইসলাম, জাতীয় প্রেসক্লাবে সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ, কবি হাসান হাফিজ, ডিইউজে’র সহসভাপতি শাহীন হাসনাত ও ডিইউজের জনকল্যাণ সম্পাদক খন্দকার আলমগীর হোসাইন প্রমুখ। এছাড়া ডিইউজে ও বিএফইউজের উদ্যোগে আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজন করা হয়েছে স্মরণসভার।

আতাউস সামাদের জন্ম ১৯৩৭ সালের ১৬ নভেম্বর ময়মনসিংহে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রিলাভের পর ১৯৫৯ সালে সাংবাদিকতা শুরু করেন। তিনি দীর্ঘদিন প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশে (পিআইবি) কর্মরত ছিলেন। ১৯৫৯ সালে সাংবাদিকতা শুরু করেন আতাউস সামাদ। ১৯৬৯ ও ১৯৭০ সালে পূর্ব পাকিস্তান ইউনিয়ন অব জার্নালিস্টের (ইপিইউজে) সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৬৫ সাল থেকে ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান অবজারভারের চিফ রিপোর্টারের দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত তিনি নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) বিশেষ সংবাদদাতা হিসেবে কাজ শুরু করেন। এ ছাড়া তিনি ১৯৮২ সাল থেকে টানা ১২ বছর বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস নিউজের বাংলাদেশ সংবাদদাতা ছিলেন। সর্বশেষ তিনি দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার উপদেষ্টা সম্পাদক ছিলেন।] এছাড়া তিনি সাপ্তাহিক ‘এখন’ এর সম্পাদক ছিলেন। বেসরকারি টেলিভিশন এনটিভি’র নির্বাহী প্রধান হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন। সাংবাদিকতার পাশাপাশি আতাউস সামাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যায়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের খ-কালীন শিক্ষক হিসেবেও কাজ করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত