প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মৌলভীবাজার-শমশেরনগর-চাতলা স্থলবন্দর সড়কের বেহাল দশা, আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

স্বপন কুমার দেব, মৌলভীবাজার : মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের মৌলভীবাজার- শমশেরনগর- চাতলা স্থলবন্দর সড়কের এখন বেহাল দশা। খানাখন্দে ভরা রাস্তাটি দিয়ে যানবাহন ও যাত্রীদের চলাচলো ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে ভারতের সাথে আমদানী রপ্তানি বর্তমানে বন্ধ রয়েছে। আরএইচডি’র রাস্তাটি এখন ইট সলিং দিয়ে মেরামতের কাজ চলছে।

সরজমিনে দেখা যায়, মৌলভীবাজার-শমশেরনগর-চাতলাপুর সড়কে করুণ দশা। দীর্ঘদিন ধরে সড়কে গর্ত, বড় বড় খানা-খন্দ ও পানি জমে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। গর্তে পড়ে যানবাহনসমূহের নানা দুর্ঘটনাও ঘটেছে প্রতিনিয়ত।এতে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। চাতলাপুর স্থলবন্দর থেকে শমশেরনগর হয়ে মৌলভীবাজার জেলা সদর পর্যন্ত রাস্তাটি প্রায় ৩৮ কিলোমিটার। জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়কটি যাতায়াত ও মালামাল পরিবহণে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি রুট। জেলা সদরের সাথে সংযোগ রক্ষাকারী অন্যতম এ সড়কটি বেহাল দশায় পরিণত হওয়ায় কয়েক লক্ষাধিক মানুষ অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

চাতলা শুল্ক ও স্থলবন্দর হয়ে ভারতের উত্তর ত্রিপুরায় পণ্য ও মালামাল আমদানি-রপ্তানি ছাড়াও এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার শিক্ষার্থী, কর্মজীবী ও সাধারণ মানুষ চলাচল করে থাকেন। দীর্ঘদিন যাবত্ সড়কটি সংস্কার না করায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে যান চলাচলের অনুপোযোগি হয়ে পড়ছে। সম্প্রতি বন্যায় সড়কের শরীফপুর ইউনিয়নের কয়েকটি স্থানে বড় বড় ভাঙন দেখা দেয়। এছাড়াও কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর থেকে মৌলভীবাজার জেলা সদরের ২০ কিলোমিটার সড়কের শমশেরনগর মোকামবাজার, মরাজানেরপার, রাধানগর, রামপুর, মুন্সীবাজার, বাবুরবাজার, চৈত্রঘাট, জয়কালী মন্দির, শ্যামেরকোনা বাজার, শিমুলতলাসহ সড়কের অধিকাংশই গভীর গর্ত ও খানা-খন্দে ভরপুর। সড়ক ও জনপথ বিভাগের এই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণ ঝুঁকিপূর্ণ।

মৌলভীবাজার জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃপক্ষ আরএইচডি’র রাস্তা ইট সলিং দিয়ে মেরামতের কাজ করছে। পাকা রাস্তার মাঝে মাঝে ইট সলিং দিয়ে নির্মাণ করার ফলে সাধারণ জনগণের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে এবং এটি রাষ্ট্রীয় অপচয় বলে আখ্যায়িত করেন সাধারণ জনগণ। এব্যাপারে জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপসহকারি প্রকৌশলী মো: শরীফুল ইসলাম জানান, মৌলভীবাজার- শমশেরনগর- চাতলা স্থলবন্দর সড়কের টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন। আপাতত ভারতের সাথে বাংলাদেশের আমদানী রপ্তানী পূণ প্রতিষ্ঠাতার জন্য ইট দিয়ে সলিং করে মেরামতের কাজ চলছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত