প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কেন মঈনুল মঞ্চে মধ্যমণি? জানেন না কেউ!

ডেস্ক রিপোর্ট : বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গঠনের লক্ষ্যে নবগঠিত জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনর অংশগ্রহণ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে নানা মহলে। দেশকে বিরাজনীতিকীকরণ ও মাইনাস-টু ফর্মুলা তথা ওয়ান ইলেভেন অন্যতম কুশীলব হিসেবে পরিচিত ব্যারিস্টার মঈনুলকে ওই সমাবেশে দেখতে পেয়ে অনেকেই বিষ্মিত হয়েছেন। কেউ বলতে পারছেন না… ঠিক কার দাওয়াত পেয়ে তিনি ওই সমাবেশে এসেছিলেন। অনুষ্ঠানের মূল আয়োজক ড. কামাল হোসেনও বলেছেন, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে।

গত ২২ সেপ্টেম্বর (শনিবার) রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। তাতে অংশ নিয়েছিলেন গণফোরাম, বিকল্প ধারার বাংলাদেশ, নাগরিক ঐক্য, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল’র নেতারা। এছাড়া বিএনপি’র নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের কয়েকটি দলের শীর্ষ নেতারাও এতে অংশ নেন। গোড়া থেকেই প্রক্রিয়াটিকে রাজনৈতিক ঐক্য বলা হয়ে আসছে। তাতে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগও অংশ নিতে পারে এমনটাই বলে আসছেন নেতারা। তেমনই এক প্রক্রিয়ায় ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেন কেন? সে প্রশ্নের জবাব খুঁজতে যোগাযোগ করা হয় নেতাদের সঙ্গে। কি বলেছেন এই ঐক্য প্রক্রিয়ার শীর্ষ নেতারা?

বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমরা যাওয়ার আগ মূহূর্ত পর্যন্ত জানতাম না কারা সেখানে থাকবেন। যাওয়ার পর আমরা দেখেছি ব্যারিস্টার মঈনুল রয়েছেন। আমরা ড. কামাল হোসেনের আমন্ত্রিত অতিথি ছিলাম। অন্যরাও ড. কামাল হোসেনেরই অতিথি ছিলেন। সুতরাং এই প্রশ্নের উত্তর আমরা দেবো না… ড. কামাল হোসেনই দেবেন।

এদিকে ড. কামাল হোসেন জানান, তিনি নিজেও জানতেন না ঠিক কে ব্যারিস্টার মঈনুলকে দাওয়াত দিয়েছিলেন?

ড. কামাল বলেন, দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল কি না আমি ঠিক জানি না… খুঁজে দেখতে হবে। তবে আমাদের এই ঐক্যে তো যে কেউ আসার সুযোগ ছিলো।

রাজনৈতিক ঐক্যে ব্যক্তির অংশগ্রহণ, বিশেষ করে এমন কেউ যিনি ওয়ান ইলেভেনের কুশীলবদের একজন বলে পরিচিত ও রাষ্ট্রকে বিরাজনীতিকীকরণ করতে চেয়েছিলেন, তার এই অংশগ্রহণ ঐক্যের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ ছিলো? এমন প্রশ্নে গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক বলেন, অনেক কথা বলেছি, ক্ষতি হবে কি না জানিনা। এখন আর কিছু বলতে চাই না।

নাগরিক ঐক্যের আহ্ববায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনকে আমরা দাওয়াত দেইনি। কর্মসূচির মূল আয়োজনে ছিলেন ড. কামাল হোসেন। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিতেই এই সমাবেশ ছিলো… তবে ব্যানারে লেখা ছিলো নাগরিক সমাবেশ। সে কারণে হয়তো আসতে পারেন। এ ব্যাপারে আর বেশি কিছু বলার নেই।’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে এই মূহূর্তে আমি কথা বলতে রাজি নই।’

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব আ ফ ম মোস্তফা আমিন বলেন, ঐক্য প্রক্রিয়ায় জামায়াত ও সাজাপ্রাপ্ত আসামি ছাড়া ১৬ কোটি মানুষের যে কারোর জন্য দরজা খোলা। এখানে আওয়ামী লীগও আসতে পারে।

সাবেক আওয়ামী লীগ এমপি ও গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, এই ঐক্য প্রক্রিয়ার যে কেউ আসতে পারেন, তাতে বাধা দেওয়ার কিছু নেই। আর ব্যারিস্টার মঈনুল নিশ্চয়ই দাওয়াত পেয়েই এসেছেন। ওয়ান ইলেভেনের কুশীলবদের একজন বলে তিনি পরিচিত, এমন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওয়ান ইলেভেন পরবর্তী সরকারে যারা ছিলেন তারা এই ঐক্য প্রক্রিয়া আসতে পারবেন না এমন কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

ব্যারিস্টার মঈনুলকে দেখে আমি রীতিমত অবাক হয়েছি… এমন কথা বললেন বিকল্প ধারার একজন সিনিয়র নেতা। তিনি জানিয়েছেন দলের প্রধান বদরুদ্দোজা চৌধুরীও ব্যারিস্টার মঈনুলের উপস্থিতিতে বিষ্মিত হয়েছেন। তাকে অনেকটা অনুষ্ঠানের মধ্যমনি করা হয়েছে, যা অনেকের কাছেই ছিল প্রশ্নবিদ্ধ, বলেন এই নেতা।-সারাবাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত