প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় নিজ জমিতে অবরুদ্ধ ৬১ পরিবার

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ: খেয়ে না খেয়ে দিন চলে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার কান্দি ইউনিয়নের নয়াকান্দি তরুর বাজারের বিধবা আলোমতি বিশ্বাসের। তরুর বাজারে তাদের একটি দোকান ঘর ছিল। সেই দোকান ঘরটিতে তার ছেলে ব্যবসা করতো। যা আয় হতো তা দিয়ে তাদের সংসার চলতো। ঘরটি ভূমিদস্যু নুরুল ইসলাম শেখ ভেঙ্গে দিয়েছে।

এমন অভিযোগ শুধু আলোমতির একার না। একই ভাবে বিধবা চিপমনি বিশ্বাস, আরতি বিশ্বাস, সুবোধ সমাদ্দার, সুখরঞ্জন জয়ধর, খগেন বিশ্বাস, শান্তি জয়ধর, আক্কাস শেখ, নুরুই ইসলাম ও একই ধরণের অভিযোগ করেন। তারা জানান, পাশ্ববর্তী টুঙ্গিপাড়া উপজেলার করফা গ্রামের প্রভাবশালী ব্যবসায়ী নুর ইসলাম শেখ কোটালীপাড়া উপজেলার নয়াকান্দির তরুর বাজারে ব্যক্তিগত জমিসহ সরকারী জমি দখল করে নিয়েছে। দখলকৃত জমির উপর দীর্ঘ দেওয়াল তুলে দেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ৬১টি পরিবার ও ব্যবসায়ীরা।

ভুক্তভোগী শাজাহান ব্যাপারী জানান, কয়েকটি পরিবারের লোকজন ও এ সকল পরিবারের স্কুলগামী শিক্ষার্থীদেরকে মই দিয়ে দেওয়াল পার হয়ে যাতায়াত করতে হয়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা। এ নিয়ে প্রতিবাদ করলেই দেওয়া হয় হুমকি। ফলে অনেকেই ভয়ে কথা বলতে চান না। আমি দ্রুত আমার জমি ফেরতসহ দোষীদের শাস্তির দাবী করছি।

আরেকজন ভুক্তভোগী আরজ আলী বলেন, আমিসহ আমার আর তিন ভাইয়ের মোট আট শতাংশ জমি নুর ইসলাম দখল করে রেখেছে আমরা জমির কাছে গেলে আমাদের প্রান নাশের হুমকি দেয়। ভয়ে আমরা কিছু বলতে পারি না।

এ ব্যাপারে জানার জন্য অভিযুক্ত নুর ইসলাম শেখর মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমরা কারো জমি দখল করিনি। জমি ও দোকান ঘর গুলো সম্পূর্ণ আমার আমি এ গুলো বৈধ্য ভাবে ক্রয় করেছি।

কান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উত্তম কুমার বাড়ৈ বলেন, নুর ইসলাম শেখ সরকারি ও ব্যক্তিগত জমি দখল করেছেন এমন অভিযোগ আমি শুনেছি। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানাচ্ছি।

কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, দোষী ব্যক্তির বিরুদ্ধে দ্রুতই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত