প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

একটি হরফ নেই এই খবরের নেই কোন টিভি চ্যানেলে

মহিউদ্দিন আহমেদ : গতকাল বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর,২০১৮ সন্ধ্যা ০৭-৩০ এর বিবিসি বাংলার প্রবাহ অধিবেশনে এবং আজ বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর সকাল ০৭-৩০ এর প্রত্যূষা অধিবেশনে বিবিসি বাংলা বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার আমেরিকায় সদ্য প্রকাশিত বইটিকে দু’টো অধিবেশনেই এক নম্বর খবরের মর্যাদা দিয়ে প্রচার করেছে। খবরে বিচারপতি সিনহার মোটামুটি দীর্ঘ একটি সাক্ষাৎকারও প্রচার করে বিবিসি বাংলার এই দুই অধিবেশন।

এই সাক্ষাৎকারে, আমাদের ডিজিএফআই প্রধান, বিচারপতি সিনহার বাসায় গিয়ে বিচারপতি সিনহাকে বিদেশে চলে যাওয়ার জন্য কেমন চাপ প্রয়োগ করেন, বিচারপতি সিনহা সে অভিযোগও করেন তার এই সাক্ষাৎকারে। আমোদ এবং আশ্চর্যের বিষয় হল, আজ বৃহস্পতিবার সকালের ঢাকার দৈনিক পত্রিকাগুলোর মধ্যে একমাত্র ইংরেজী দৈনিক নিউ এজ বিবিসি বাংলার বরাতে এই খবরটি ছেপেছে। ইংরেজী দৈনিক ডেইলী স্টার এবং বাংলা দৈনিক মানবজমিন ছোট করে, হাল্কা ভাবে খবরটি উল্লেখ করেছে, আর কোন পত্রিকা নয়। এমন কি সর্বোচ্চ প্রচার সংখ্যার দুই দৈনিক পত্রিকা, প্রথম আলো এবং বাংলাদেশ প্রতিদিনএ-ও একটি হরফ নেই এই খবরের!! নেই এই খবর আর কোন টিভি চ্যানেলও!!!

সুতরাং আওয়ামী লীগকে সন্তুস্ট রাখা বসুন্ধরা গ্রুপের এখন প্রাইওরিটি। তাই তারা বিচারপতি সিনহার উপর এই খবরকে  ব্ল্যাক আউট করতেই পারে। কিন্ত প্রথম আলো কেন ব্ল্যাক আউট করল? বা, ঢাকার অন্যসব বড় বড় দৈনিক? এখানে কি সংবাদপত্রের স্বাধীনতার অভাব ছিল? নিউ এজ তো সেই অভাব বোধ করেনি! বাংলাদেশের বর্তমান সাংবাদিকতা, সাংবাদিকতায় ধান্ধাবাজী, মালিকের ব্যাবসায়ীক এবং রাজনৈতিক স্বার্থ নিয়ে অনেক প্রশ্ন। কিন্ত জবাব দেবে কে? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত