প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকারকে লজ্জা জনক পরাজয় বরণ করতে হবে : নজরুল ইসলাম

শিহাবুল ইসলাম: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, নুন্যতম দাবির ভিত্তিতে আগামীতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে উঠতে যাচ্ছে। যে আন্দলনের মুখে বর্তমান সরকারকে শুধু পদত্যাগ নয়, লজ্জা জনক পরাজয় বরণ করতে হবে।

জাতীয় প্রেসক্লাবের ৩য় তলার কনফারেন্সে লাউঞ্জে রবিবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব বলেন। বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তি ও সুস্বাস্থ্য কামনায় দোয়া ও আলোচনা সভাটির আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নবীন দল কেন্দ্রীয় কমিটি।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ১৬ কোটি মানুষকে রক্ষা করার জন্য দেশে গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠা করা দরকার। গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠার জন্য, আমাদের নেত্রী গ্রেফতার হওয়ার আগেই জনগনের কাছে আহব্বান করে গেছেন যে একটি নির্দলীয় সরকার, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন করার জন্য আন্দোলন করুন। সংসদ ভেঙে দিতে হবে, ইভিএম বাতিল এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নিরাপত্তা বাহীনি মোতায়েন করতে হবে। এসব দাবীতেই গতকাল দেশের অনেক বড় বড় রাজনীতিবিদ ও বিশিষ্ট ব্যাক্তিরা একই দাবিতে আন্দোলনের আহবান জানিয়েছেন।

আমাদের দল সেখানে অংশগ্রহন করে তাদের বক্তব্যের সাথে একমত পোষন করেছে। আমাদের ২০ দল একটা জোট করেছেন, বাম দলের একটা জোটের প্রতিনিধিরা সেখানে অংশ নিয়েছেন। এ সকলের অংশগ্রহনে প্রমানিত হয়, আগামী দিনে এই সব নুন্যতম দাবির ভিত্তিতে একটা ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে উঠতে যাচ্ছে। যে আন্দলনের মুখে এই সরকারকে শুধু পদত্যাগ নয়, পিনাক চক্রবর্তীর ভাষায় লজ্জা জনক পরাজয় বরণ করতে হবে।

বিএনপি কারো শত্রু নয় জানিয়ে দলটির এই নেতা বলেন, আমরা রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ। আমরা কেউ কারো শত্রু নই। আওয়ামী লীগকে শত্রু মনে করি না। তারা আমাদের প্রতিদন্ডি, প্রতিপক্ষ। আমরা তাদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, অন্যন্য আচারনের বিরোধীতা করি। নির্বাচনের সময় তাদের সঙ্গে প্রতিদন্ডিতা করবো, তাদের হারানোর চেষ্টা করবো।

কিন্তু তাদের সঙ্গে আমাদের আচরণ শত্রুতাপুর্ন হওয়ার কারণ নাই। কিন্তু আজ বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সরকার যে আচরণ করছে, এ আচরণ শত্রুতামূলক, অমানবিক, সরকারে যারা আছেন তারা যে শপথ করেছিলেন তার পরিপন্থী। মন্ত্রী হলে শপথ নিতে হয়, যে অনুরাগ বা বিরাগের বশবর্তী হয়ে আমি কোনো কিছু করবো না। তারা (আওয়ামী লীগ) বশবর্তী হয়ে চিকিৎসা না দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

সরকার ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘কারণটা কি? কারণ গতকাল ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছেন, দল ক্ষমতায় না থাকলে তোমাদের (দলের নেতা-কর্মীদের) হাজার পাওয়ারের বাল্ব দিয়েও খুজে পাওয়া যাবে না। এটাই বাস্তবতা। আগের ইতিহাসও তাই, ৭৫ সালের পরও তাদের খুজে পাওয়া যায় নাই। এখনো খুজে পাওয়া যাবে না। কারণ, দুর্নীতি, অনাচার, অপরাধ করে তারা মানসিক ভাবে এতই দুর্বল যে সব কিছুতাই ভয় পাচ্ছে।

বেগম খালেদা জিয়া যে মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন সেটাতে তিনি জামিন পেয়েছেন। অন্যন্য মামলায় তিনি জামিন পেয়েছেন। দুইটি মামলা আটকে রাখা হয়েছে। ওই দুই মামলায় সব আসামী জামিনে আছেন কিন্তু খালেদা জিয়াকে জামিন দেওয়া যাবে না। ভয়, যে বেগম খালদা জিয়া বের হয়ে আসলে, তার প্রতি জনগনের সহানুভূতি, জনপ্রিয়তা যত বেড়েছে তার সামনে সরকার দাড়াতে পারবে না সেই ভয়ে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত