প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাবি কর্তৃপক্ষের মনে রাখা উচিত, ডাকসু নির্বাচন বহু প্রত্যাশিত

মুহাম্মদ আশ্রাফুল আলম ভূঁইয়া : বাংলাদেশে ছাত্র রাজনীতির ইতিহাসে ডাকসু নির্বাচন একটি গুরত্বপূর্ণ বিষয়। ডাকসু বা ছাত্র সংসদ নির্বাচন একটি গুরত্বপূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যের অংশ। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনক ভাবে ডাকসু নির্বাচনের ঐতিহ্যে কলঙ্ক লেপনের  চেষ্টা করা হচ্ছে। গত ১৬ই  সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির উদ্যোগে ডাকসু নির্বাচন নিয়ে ছাত্রসংগঠনগুলোর সাথে আলোচনা সভায় কিছু ছাত্র সংগঠনকে আমন্ত্রন জানালেও দু:খজনক ভাবে ঢাবি কর্তৃপক্ষ ছাত্র রাজনীতিতে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনকারী এবং ডাকসু নির্বাচনের দাবীতে  সোচ্চার মূলধারার অনেক ছাত্র সংগঠনকে আমন্ত্রন জানায়নি। এটা উচিৎ নয়। অথচ এসব ছাত্র সংগঠন প্রতিটি ক্যাম্পাসে নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে রাজনীতি করছে, ছাত্রদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ভূমিকা পালন করছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সাথে সভা  সেমিনার করছে। এসব ছাত্র সংগঠন গুলো ছাত্রসমাজের বেশির ভাগ অংশের প্রতিনিধিত্ব করছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ প্রতিটি ক্যাম্পাসে সংগঠনগুলোর নিয়মতান্ত্রিক ও গঠনমূলক কর্মকান্ড পরিচালিত হচ্ছে। ছাত্রসমাজের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে এ সকল সংগঠনের নেতাকর্মীরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র ও ছাত্র সমাজের স্বার্থ রক্ষার প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে এসব সংগঠনের নেতাকর্মীদের অগ্রণী ভূমিকা রয়েছে।

ঢাবি কর্তৃপক্ষের মনে রাখা উচিৎ, ডাকসু নির্বাচন বহু প্রত্যাশিত ও বাংলাদেশের ইতিহাসের গুরত্বপূর্ণ অংশ। প্রাচ্যের অক্সফোর্ড হিসেবে খ্যাত ঢাবি কোন নির্দিষ্ট দল বা গোষ্ঠীর ক্যাম্পাস নয়। সকল শ্রেণী পেশার মানুষের প্রত্যাশার অন্যতম স্থান এ ক্যাম্পাস। এখানে সকল ছাত্র সংগঠনের সমান ভাবে রাজনীতি ও ছাত্র সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার অধিকার রয়েছে। ডাকসুর সার্বিক কার্যক্রমে প্রত্যাশিত ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে সকল ছাত্র সংগঠনের। কিন্তু সে সুযোগ থেকে কোন ছাত্রসংগঠনকে বঞ্চিত করলে তা হবে সংবিধান বিরোধী। এ নির্বাচন নিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকান্ড অব্যাহত রাখলে ছাত্রসমাজ বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠবে। হঠকারী সিদ্ধান্ত দিয়ে কখনোই প্রত্যাশিত ও সুষ্ঠু ডাকসু নির্বাচন সম্ভব নয়। সুতরাং ডাকসু’র মত এমন একটি গুরত্বপূর্ণ র্নিবাচনের আগে অবশ্যই ক্যাম্পাসে সকল ছাত্র সংগঠনের সহবস্থান নিশ্চিত করতে হবে। সকল ছাত্রসংগঠন গুলোকে সমান অধিকার দিয়ে ডাকসুর সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। আমরা আশা করি প্রত্যাশিত ডাকসু নির্বাচন সম্পন্ন করতে ঢাবি কর্তৃপক্ষ দায়িত্ববোধ ও নিজেদের মর্যাদার প্রতি সম্মান দেখাবেন। দলীয় মনোভাব ও হীনমন্যতার উর্দ্ধে উঠে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিবেন। একই সাথে সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করে সকল ছাত্র সংগঠনের অংশ গ্রহণে ডাকসু নির্বাচনের কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। পরিচিতি: মুহাম্মদ আশ্রাফুল আলম ভূঁইয়া, সদস্য,কেন্দ্রীয় কমিটি,ঘঊঐজঋ/ মতামত গ্রহন: তাওসিফ মাইমুন/ সম্পাদনা: মো.এনামুল হক এনা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত