প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

এনটিভি চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক আলীর প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল আমাদেরসময় ডট কম-এ ‘সিঙ্গাপুরে গোপন বৈঠক, ক্ষেপেছেন তারেক!’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনের প্রতিবাদ করেছেন এনটিভি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী।

প্রতিবাদে তিনি বলেন, আপনার বহুল প্রচারিত অনলাইন পোর্টাল ‘আমাদের সময় ডটকম’-এ আজ ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে ‘সিঙ্গাপুরে গোপন বৈঠক, ক্ষেপেছেন তারেক!’ শিরোনামে আমার ছবিসহ সম্পূর্ণ মিথ্যা একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। খবরটি সম্পূর্ণ আজগুবি এবং সবৈব মিথ্যা। কোন প্রকার যাচাই-বাছাই এবং আমার বক্তব্য ছাড়া এধরণের একটি মিথ্যা সংবাদ প্রচার দুঃখজনক এবং বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার নীতিমালার পরিপন্থী। আমি আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী এ খবরের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে সংবাদটি প্রত্যাহারের অনুরোধ জানাচ্ছি। অন্যথায় আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হব।

এর আগেও ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে একই শিরোনামে নামসর্বস্ব কথিত একটি অনলাইন পোর্টাল ‘বিডিএসনিউজ২৪ ডটকম’-এ এই মিথ্যা সংবাদটি প্রথম প্রকাশনা হয়। কোনো প্রকার যাচাই-বাছাই ও সূত্র উল্লেখ ছাড়াই এই মিথ্যা সংবাদটি পুনঃপ্রকাশ করেছে আমাদের সময় ডটকম। প্রকাশিত সংবাদটিতে কথিত সূত্রের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, গত মঙ্গলবার সিংঙ্গাপুুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে সরকাবিরোধীদের গোপন বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপানের উপদেষ্টা ব্যবসায়ী নেতা আব্দুল আউয়াল মিন্টু, সাবেক মন্ত্রী মোর্শেদ খান ও তার ছেলে ফয়সাল মোর্শেদ খান, আমি আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী, সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা এবং আইএসআইপ্রধানের সাভিদ মোকতার।

আমি আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী সাম্প্রতিক সময়ে সিঙ্গাপুরেই যাইনি। বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টুর সঙ্গেও গত তিন-চার বছরে আমার দেখা হয়নি। শুধু তাই নয়, সাবেক মন্ত্রী মোর্শেদ খান ও তাঁর ছেলে ফয়সাল মোর্শেদের সঙ্গে গত সাত-আট বছরে একবারের জন্যও আমার দেখা হয়নি। এ ছাড়া সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সঙ্গে আজ পর্যন্ত আমার কোনোদিনই দেখা হয়নি বা কথাও হয়নি। শুধু পাকিস্তানই নয়, পৃথিবীর অন্য কোনো দেশের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গেও আমার জীবনে কোনোদিন দেখা হয়নি বা কথা হয়নি। এ খবর সর্বৈব মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

এ ধরণের মিথ্যা সংবাদ ও গুজব প্রচার এবং তা অনলাইন বা ডিজিটাল মাধ্যমে ছড়ানো সম্প্রতি জাতীয় সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট-২০১৮ অনুযায়ী কঠোর শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আমি এই মিথ্যা সংবাদটি এই মূহুর্তে প্রত্যাহার করে নেওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি এবং আমার এই প্রতিবাদলিপিটিও যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশের অনুরোধ জানাচ্ছি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত