প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

সংসদ বিলুপ্ত ও সরকারের পদত্যাগের প্রশ্নই আসে না: বাণিজ্যমন্ত্রী

তরিকুল ইসলাম সুমন : বর্তমান সংসদ বিলুপ্ত ও সরকারের পদত্যাগের প্রশ্নই আসে না বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। আজ আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস উদযাপন উপলক্ষে সম্প্রীতি নৌ যাত্রার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গণফোরাম ও যুক্তফ্রন্টের সমন্বয়ে গঠিত ঐক্যজোট দাবির প্রেক্ষিতে এ মন্তব্য করেন।

শনিবার সদরঘাটে এমভি মধুমতি জাহাজে ভারত-বাংলাদেশের শতাধিক সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব নৌ যাত্রায় অংশ নেয়।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, সংসদ বিলুপ্ত করার প্রশ্নই আসে না। সরকারের পদত্যাগের প্রশ্নই ওঠে না। সংবিধান অনুসারে নির্বাচন হবে। দৃঢ়তার সাথে বলতে পারি, এ নির্বাচনকে কেউ বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না। নির্বাচনকালীন সময়ে সরকারের যে দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনকে সাহায্য করা, সেটা অন্তর্বর্তী সরকার করবে। এর বাইরে কোন কিছু হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাতে আওয়ামী লীগের পতাকা তুলে দেয়ার পর তিনি আবারও বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনাকে পুনর্স্থাপন করেছেন। বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারকাজ শুরু করেন। আবার দেশকেও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির সোপানে নিয়ে গেছেন। ২০০১ বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ক্ষমতায় এসে দেশকে আবারও পিছিয়ে নিয়েছে। এরপর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে গত ৯ বছরে দেশকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

তিনি আরো বলেন, একটি সরকার ক্ষমতায় ধারাবাহিকভাবে থাকলে দেশের উন্নয়ন হয়, এ সরকার তার প্রমাণ। পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, মাতারবাড়ি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, পায়রা বন্দর, মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের মতো অনেক যুগান্তকারী কাজ হয়েছে। বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল, তখন আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতিষ্ঠিত কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করেছিল। পদ্মা সেতুর কাজ বন্ধ করেছিল। সুতরাং আগামী নির্বাচনের জন্য সবাইকে প্রস্তুতি নিতে হবে এবং স্বাধীনতার সপক্ষের শক্তিকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনতে হবে। তাহলে দেশ আরো এগিয়ে যাবে।

তিনি আরো বলেন, ড. কামাল হোসেন, বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও বিএনপি এক হয়ে ঐক্যজোট গঠন করতে যাচ্ছে। আমরা এ ঐক্যজোটের বিরুদ্ধে না। কিন্তু কেউ যদি আইনশৃঙ্খলা নিজের হাতে নিয়ে চায় তা মেনে নেয়া হবে না। নির্বাচন হবে সংবিধান এবং নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তারিখ অনুসারে। বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার ক্ষমতায় থাকবে। মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, গ্রেট ব্রিটেন, ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনে নির্বাচন হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, যারা আজ জোট করছেন তাদের সবাইকে চিনি। দলছুট নেতাদেরকেও চিনি। এক সময় তারা আমাদের দল করতেন। এমন নেতাও আছে, যারা জীবনেও ভোটে দাড়িয়ে জিততে পারেননি। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচনে করেছেন। এমন নেতাও আছেন, যাকে রাষ্ট্রপতি করা হয়েছিল। পরে আবার টেনে নামানো হয়েছিল। পরে একটি মিটিং তাকে রেল লাইন দিয়ে দৌড়ানো হয়েছে। তাহলে কোথায় সেই নীতি, কোথায় সেই আদর্শ। আপনারা সতর্ক থাকবেন, ষড়যন্ত্র হতে পারে। কিন্তু দক্ষতার সাথে সে ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করা হবে। এতো উন্নয়নের জন্য আবারও বাংলার মানুষ শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবেন।

ইন্টাররিলিজিয়ন হারমোনি সোসাইটির মহাসচিব মনোরঞ্জন ঘোষাল অনুষ্ঠান সঞ্চালনা অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যেনৌ যাত্রায় বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সহ-সভাপতি বুদ্ধপ্রিয় মহাথেরো, ইউনাইটেড রিলিজিয়ন ইনিশিয়েটিভের এশিয়ান ট্রাস্টি রেভা.কল্যাণ কুমার কিস্কু, সাবেক মহা নিরিক্ষক মাসুদ আহমেদ, গুরু দোয়ারা নানকশাহীর গ্রন্থি যশোবন্ত সিং, ভারতীয় অতিথিদের মধ্যে বীরেন্দ্র লাভ ভট্টপার্য, অধ্যাপক পবিত্র সরকার, কবি শিখ্ষাবীদ ড. অভিজিৎ ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত