প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শাহজালালে ২ কোটি টাকার আমদানি নিয়‌ন্ত্রিত বিদেশি ওষুধ ও সিগারেট জব্দ

সুজন কৈরী: হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ২ কোটি টাকা মূ‌ল্যের আমদানি নিয়‌ন্ত্রিত বিপুল সংখ্যক বিদেশি ওষুধ ও সিগারেট জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর।

শুক্রবার দিবাগত রাতে এসব ওষুধ ও সিগারেট জব্দ করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দার ডিজি ড. সহিদুল ইসলাম জানান, জব্দ সিগারেট ১ হাজার কার্টনে পাওয়া যায়। তার মধ্যে ৪৫৫ কার্টন বেনসন, ৪৬০ কার্টন ইজি ও ৮৫ কার্টন ডানহিল রয়েছে। এছাড়া ২৫ হাজার ৫৩৯ পিস ওষুধ ও ৮ কেজি রঙ ফর্সাকারী ক্রিম জব্দ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, শারজাহ থেকে ছেড়ে আসা একটি ফ্লাইট (জি৯ ৫১৩) শুক্রবার দিবাগত রাত ৪টায় ঢাকায় পৌঁছায়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দারা জানতে পারে যে, ওই ফ্লাইটে বিপুল পরিমাণ সিগারেট ও ওষুধ আসবে। এ প্রেক্ষিতে শুল্ক গোয়েন্দা দল ব্যাগেজ বেল্টসহ গ্রিন চ্যানেলে বিশেষ নজরদারি বজায় রাখে।

শারজাহ ফ্লাইটের জন্য নির্ধারিত ৬নং ব্যাগেজ বেল্ট থেকে ব্যাগ সংগ্রহ করে ধবধবে সাদা পাঞ্জাবি পায়জামা পরিহিত ৬ জন যাত্রী গ্রীন চ্যানেল দিয়ে বের না হয়ে হাজীদের বের হওয়ার জন্য নির্ধারিত গেটের দিকে দ্রুত রওনা দিলে শুল্ক গোয়েন্দা দল তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করে। এরপর তাদের কাছে থাকা লাগেজগুলো স্ক্যান করে বিপুল পরিমাণ সিগারেট ও ওষুধের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। পরে কাস্টমস হলে ভোর ৫টায় বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে লাগেজগুলো খুলে মোট ১ হাজার কার্টনে থাকা ২ লাখ শলাকা আমদানি নিষিদ্ধ বিদেশি সিগারেট, ২৫ হাজার ৫৩৯ পিস ওষুধ, রঙ ফর্সাকারী ক্রিম ও থ্রিপিস আটক করা হয়।

শুল্ককরসহ জব্দ পণ্যের মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা। জব্দ পণ্যের বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

সহিদুল বলেন, সিগারেটের প্যাকেটের গায়ে বাংলায় ধূমপানবিরোধী সতর্কীকরণ লেখা ব্যতিত বিদেশি সিগারেট আমদানি করা যায় না। সিগারেটের উপর উচ্চ শুল্ক (প্রায় ৪৫০%) পরিহারের জন্যই এসব সিগারেট আনা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত