প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সৌম্য-ইমরুলকে ডাকার খবর জানতেন না মাশরাফি!

স্পোর্টস ডেস্ক : তামিম ইকবাল ছিটকে যাওয়ার পর উদ্বোধনী জুটি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট। লিটন দাসের সঙ্গে নাজমুল হোসেন শান্তকে পাঠালেও তারা প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। আর তাই হঠাৎ করে দলের বাইরে থাকা সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসকে দেশ থেকে দুবাইয়ে ডাকা হয়েছে। জানা গেছে টিম ম্যানেজমেন্টের চাওয়াতেই তাদের নেওয়া হয়েছে। অথচ মাশরাফি মুর্তজা এমন কোনও খবর জানেনই না। এখন প্রশ্ন উঠছে, তবে কি অধিনায়ক মাশরাফি টিম ম্যানেজমেন্টের বাইরে?

শুক্রবার ভারতের বিপক্ষে আরেকবার ব্যাটিং ব্যর্থতা ফুটে উঠেছে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে। তাদের ইনিংস শেষেই খবর জানা যায়, সৌম্য ও ইমরুলকে দেশ থেকে আনা হচ্ছে। তখনও খবরটা কানে যায়নি মাশরাফির। সাংবাদিকদের মাধ্যমে এই খবর জানার পর অবাকই হলেন ওয়ানডে অধিনায়ক, ‘না। আমি মাঠের ভেতর ছিলাম। এই সিদ্ধান্তের ব্যাপারে এখনও আমি কিছু জানি না। আমার সঙ্গে আলোচনা হয়নি। আমি স্পষ্ট কিছু জানি না।’

যতদূর জানা গেছে আফগানিস্তান ও ভারতের বিপক্ষে লিটন ও নাজমুলের ব্যাটিং দেখে সন্তোষ নন বোর্ড প্রধান। তার সিদ্ধান্তেই এশিয়া কাপের দলে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে নতুন দুইজন ওপেনারকে।

আরব আমিরাতের কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে এশিয়া কাপ শুরুর এক সপ্তাহ আগে বাংলাদেশ দুবাই আসে। তারপরও মানিয়ে নেওয়া চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে তাদের জন্য। তাহলে শনিবার রাতে দুবাই পৌঁছে ইমরুল ও সৌম্যর পক্ষে পরদিন বিকালেই মাঠে নামা কতটা সহজ হবে? শুধু তাই নয়, তারা প্রথমে দলে জায়গা পাননি ফর্মহীনতার কারণে। আবার বাদ পড়ে এই অল্প সময়ে দলে সুযোগ পাওয়ার মতো তেমন কিছু করেননি তারা।

মাশরাফির কাছে তাই প্রশ্ন, লিটন-নাজমুলকে সরিয়ে তারা দুইজন জায়গা পেলেও কতটুকু অবদান রাখতে পারবেন। অধিনায়ক বলেছেন, ‘তাদের পারফরম্যান্স ভালো নয় বলেই দলে ছিল না। আবার এসে এই ধরনের টুর্নামেন্টে চাপ নিয়ে খেলাও কঠিন। আমি জানি না ওরা কৌশলগত কী কাজ করেছে। যে সমস্যার কারণে দলে ছিল না সেটা তারা ঠিক করতে পেরেছে কিনা সেটাও জানার বিষয়।’

আফগান স্পিনারদের বিপক্ষে গ্রুপের শেষ ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা রীতিমতো যুদ্ধ করেছে। মাশরাফির মতে সামনের ম্যাচে আরও কঠিন পরীক্ষায় পড়তে হবে ব্যাটসম্যানদের। সেখানে সৌম্য কিংবা ইমরুলকেই প্রথম পরীক্ষাটা দিতে হবে, ‘আফগানিস্তানের সঙ্গে আরও কঠিন বল মোকাবিলা করতে হবে। এটা নিশ্চিত যে কারও জন্য এটা সহজ হবে না, যারা আছে তাদের জন্যও নয়। যারাই খেলুক, খেলতে হবে দায়িত্ব নিয়েই; নতুন বা পুরানো খেলোয়াড় বলে কেউ নেই।’ সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত