প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছিলো খাল হয়ে গেছে নালা

ডেস্ক রিপোর্ট : রাজধানীর উত্তরার খালপাড় এলাকা। এখন তা দেখে বোঝার উপায় নেই। গত ১০ বছরে এ জায়গায় অসংখ্য পরিবর্তন এসেছে। উন্নয়নের ছোঁয়াও লেগেছে হরিরামপুর ইউনিয়নের ৩৩টি গ্রামে।

এক সময়ের উত্তরা ও তুরাগের পরিচিত নাম ছিল খালপাড়, সেই খালের আশপাশে এখন গড়ে উঠেছে বিদ্যুৎ কেন্দ্র,উঁচুুুু দালান, মার্কেট, বড় মসজিদসহ আরও অনেক স্থাপনা। চলাচলের রাস্তাটাও হয়েছে বেশ চওড়া। রাতের বেলায় খালপাড়ের প্রসস্থ সড়কে জ্বলে সোলার লাইট। এত এত উন্নয়নের ছোঁয়া থাকতেও যৌবন হারাতে হলো শুধু খালটিকে। যে খালের জন্যই স্থানটির নামকরণ, সেই খাল মৃত প্রায়।

তুরাগ নদীর শাখা এই খালটি এখন সরু নালায় পরিণত হওয়ায় দেখে চেনার উপায় নেই। নেই স্রোতধারা, নেই কোন নৌকা। শুধুই যেন আবর্জনার এক ভাগাড়। নিত্যদিনের মানুষের সৃষ্ট বর্জ্য আর্বজনা এই খালের মধ্যে ফেলা হচ্ছে। ফলে যে খালের মনমুগ্ধকর সৌন্দর্য্য এলাকাবাসীর মনকে প্রশান্তি এনে দিত সেই খালের পাশে দিয়ে দুর্গন্ধে হেটে যাওয়াই এখন দুস্কর। স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের এখন নাকে রুমাল চেপে যাতায়াত করতে হয়।

স্থানীয় প্রভাবশালী কিছু ব্যক্তি আর খালের পাশের জমির মালিক বনে গেছেন সহজেই। খালের তীরবর্তী বেশ কিছু জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছেন অবৈধ স্থাপনা। জায়গার নাম খালপাড় হওয়া সত্বেত্ত নতুন নতুন স্থাপনা গড়ে ওঠায় খালপাড়ের পরিবর্তে নতুন নামেই পরিচিত হচ্ছে স্থানটি। যেমন ১২ নং সেক্টর বড় মসজিদ অথবা বিদ্যুৎ অফিস বললে এখন অনেকেই সহজে চিনে নিতে পারছেন।

এক সময় ভ্রমণ পিঁপাসুদের পছন্দের জায়গা ছিল এই খাল। এ খালটি সংযুক্ত করেছিল টঙ্গির সঙ্গে নলভোগ, চন্ডালভোগ, বাউনিয়াসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম। তবে কালের বিবর্তণে সেই খালপাড় এখন পরিণত হয়েছে ময়লার ভাগারে।
সূত্র :ডেইলি অবজারভার

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত