প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে সংবাদপত্রের কণ্ঠরোধ করা হচ্ছে (ভিডিও)

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ : আমরা সংসদে পাশ হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে প্রত্যাখ্যান করেছি। আমরা মনে করি সংবিধান আমাদেরকে যে, অধিকার ও স্বাধীনতা দিয়েছে এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন অধিকার ও স্বাধীনতাকে খর্ব করছে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের মূল আদর্শ বা মূল মন্ত্র হচ্ছে, মত প্রকাশে স্বাধীনতা। এই আইনে মত প্রকাশের স্বাধীনতার বিষয়টিকে খর্ব করা হয়েছে। তাছাড়া এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি সাধারণ গণতান্ত্রিক কাঠামো বিরোধী। চতুর্থ আরো একটি কারণ হচ্ছে, এই আইনটি সাংবাদিকতার মূল স্তম্ভগুলোর পরিপন্থী। এই কারণে আমরা সংবাদপত্র পরিশোধ থেকে আইনটিকে প্রত্যাখ্যান করেছি।
বৃহস্পতিবার বিদাগত রাতে চ্যানেল আইয়ের তৃতীয় মাত্রা অনুষ্ঠানে এমন এমন মন্তব্য করেন দি ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম।

তিনি আরো বলেন, সরকার একটি সিকিউরিটি আইন করতে গিয়ে, সাংবাদিকতার কণ্ঠরোধ করছেন কিন্তু তারা বিষয়টিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখেন নি এবং দেখছেন না। আমরা সংসদীয় কমিটিতে গিয়ে বারবার অনুনয়, বিনয় করে বললাম কিন্তু তারাও বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখলেন না। মন্ত্রীরা বলছেন, তারা আমাদের কথা মেনে নিয়েছেন। কিন্তু আমার স্মৃতিতে এমন কিছু নেই যেটা আমি বলেছি আর মন্ত্রী মহাদয় সেটা মেনে নিয়েছেন। আমাকে বলতে হচ্ছে আমার স্মৃতির ভ্রম ঘটেছে। আমি তো বলতে পারছি না যে, মন্ত্রী মহাদয় …..। সরকার কেন এই আইন করেছেন আমরা জানি না। তবে আমরা ধরে নিচ্ছি সরকার ভালো কোনো কিছুর জন্যই এই আইনটি করেছে। তবে এই আইনের ইম্পেক্ট স্বাধীন সংবাদদিকতাকে ব্যহত করবে।

মাহফুজ আনাম আরো বলেন, কোনো একজন পুলিশ অফিসারের মনে হলো অমুক সাংবাদিকের পিসিতে কিছু তথ্য আছে যা আমার দেখা দরকার। তখন তিনি সেটা দেখে পত্রিকার সার্ভার এবং কম্পিউটার জব্দ করে নিতে পারবে। এই আইনি পুলিশকে সেই অধিকার দেয়া হয়েছে। সুতরাং একটি পত্রিকার অফিস বন্ধের ঘোষাণা না দিয়েও কম্পিউটার জব্দের মাধ্যমে সংবাদপত্র বন্ধ করে দিতে পারবে এই আইনের মাধ্যমে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত