প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মেডিকেল বোর্ডে নেই খালেদার চিকিৎসক, উদ্বিগ্ন বিএনপি

শিমুল মাহমুদ : বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের মেডিকেল বোর্ডে অন্তর্ভুক্ত না করায় উদ্বিগ্ন বিএনপি।

শুক্রবার রাজধানীর নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, কারাকর্তৃপক্ষের মৌখিক বার্তা অনুযায়ী মেডিকেল বোর্ডে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত ৫ জন চিকিৎসকের নাম দলের পক্ষ থেকে প্রেরণ করা হয়েছিল, কিন্তু বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের বোর্ডে অন্তর্ভুক্ত না করায় বিএনপি শুধু উদ্বিগ্নই নয়, বরং সরকারের অশুভ পরিকল্পনারই অংশ বলে দল মনে করে।

রিজভী বলেন, ‘গতকাল বেলা ১১ টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯০ জনের গ্রেপ্তারের খবর পাওয়া গেছে। দেশে এখন তুঘলকি শাসন চলছে।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘অসুস্থ দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের বিরুদ্ধেও পল্টন থানায় মামলা দেয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, রেজাক খান, মাহবুব হোসেনদের মতো প্রবীন আইনজীবীদের নামেও মামলা দেয়া হয়েছে। বড় কথা হচ্ছে কোথাও কোনো ঘটনা না ঘটলেও তাদের নামে এসব মামলা দেয়া হয়েছে। কারণ, সরকার একতরফা নির্বাচন করতে যাচ্ছে। এ সব মামলাই হচ্ছে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে।’

খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘মামলাগুলো সব ভুয়া। কারণ গত ১১ ও ১২ তারিখের ঘটনা দেখিয়ে মামলা করা হয়েছে। ১২ তারিখ  তো আমি খালেদা জিয়ার চ্যারিটেবল মামলায় জেলখানার আদালতে ছিলাম। ওখানে সব মিডিয়ার লোকেরা আমাকে দেখেছে। সেখান থেকে কীভাবে ককটেল মারলাম কিছু বুঝলাম না। হয়রানি করার অভিযোগে এ মামলাগুলো করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, সরকার কর্তৃক গঠিত মেডিকেল বোর্ডে অন্যতম সদস্য ডাঃ আবু জাফর চৌধুরী নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি প্রার্থী, তিনি দলীয় প্রার্থী হিসেবে সংশ্লিষ্ট এলাকায় ব্যাপক নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। অপর সদস্য অধ্যাপক ডাঃ হারিসুল হক আওয়ামী লীগ সমর্থিত চিকিৎসক সংগঠন স্বাচিপ (স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ) বিএসএমএমইউ এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক। এছাড়াও অধ্যাপক ডাঃ তারেক রেজা আলী আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য। সুতরাং সরকারের গঠিত বোর্ডে মনোনীত চিকিৎসকগণকে বাছাইয়ের ক্ষেত্রে পেশাগত দক্ষতার চেয়ে সরকারদলীয় আনুগত্যের ক্ষেত্রকেই অধিক গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। অতএব আওয়ামী লীগের প্রতি অনুগত চিকিৎসকগণের অন্তর্ভুক্তকৃত মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা এবং তার শারীরিক পর্যবেক্ষণ সঠিকভাবে প্রতিফলিত হবে না। কারণ সরকার কর্তৃক গঠিত মেডিকেল বোর্ড সরকারের নির্দেশ মতোই কাজ করবে।

বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, সরকারের অশুভ পরিকল্পনারই ইঙ্গিতবাহী। আমি আবারও দলের পক্ষ থেকে দৃঢ়কন্ঠে বলতে চাই-দেশনেত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের মেডিকেল বোর্ডে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। কর্তৃপক্ষের অবহেলায় যদি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কোন ক্ষতি হয়, সেজন্য এর সম্পূর্ণ দায় বর্তাবে সরকারের ওপর।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ