প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা না করায় নেতাকর্মী ও জনগণের মাঝে উদ্বেগ বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে গত আট মাসেরও বেশি সময় ধরে কারাগারে আবদ্ধ করে রাখা এবং গুরুতর অসুস্থ সাবেক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষায়িত হাসপাতালে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা না করায় দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মাঝে গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ বাড়ছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ড. রফিকুল ইসলাম হিলালী বলেন, বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের তিনবারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী। তিনি বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপি’র চেয়ারপারসন এবং বাংলাদেশের একজন জ্যেষ্ঠ নাগরিক। একজন বর্ষীয়ান নেত্রীকে সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করা মৌলিক মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন। আমরা মনে করি বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে উদাসীনতা দেখিয়ে সরকার একটি নিন্দনীয় ও কলঙ্কজনক দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে।

ড. রফিক হিলালী বলেন, আমরা উদ্বেগের সাথে এটিও লক্ষ্য করছি যে, আবারও আর এক মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেওয়ার জন্য অসাংবিধানিকভাবে কারাগারে আদালত বসিয়ে বিচারের নামে প্রহসনের চেষ্টা চলছে। আমরা মনে করি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ থেকে তাকে এবং তার দল বিএনপিকে বিরত রাখার অপকৌশল হিসেবেই এসব করা হচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত শিক্ষকদের সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম উদ্বেগের কথা জানিয়ে বলেন, আমরা জানতে পেরেছি যে, গুরুতর অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়ার দ্রুত সুচিকিৎসার ব্যবস্থা না করা হলে তার বড় রকমের শারীরিক ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। এমনটি হোক এটি কারো কাম্য নয়।

তাই বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য তাকে অতি দ্রুত বিশেষায়িত ইউনাইটেড হাসপাতালে স্থানান্তর করাসহ তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ