প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সাক্ষাৎকারে ড. কামাল হোসেন
গণমাধ্যমে কথা বলা মানেই জাতীয় ঐক্যে ‘বিতর্ক’ তৈরি

সাব্বির আহমেদ : জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার শেষ দিকে এসে গণমাধ্যমের সঙ্গে আর মুখ খুলবেন না বলে জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যের আহবায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেন, এখন কথা বলা মানেই জাতীয় ঐক্যে বিতর্ক সৃষ্টি করা। অন্যদিকে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ার লক্ষ্যে গতকাল যুক্তফ্রন্টের চূড়ান্ত হওয়া ‘সাত দফা’ নিয়ে কিছু জানেন না কামাল হোসেন। তবে শিগগিরই গণফোরামের পক্ষ থেকে সাত দফা প্রস্তাব পেশ করা হবে।

বুধবার মতিঝিলের মেট্রোপলিটন চেম্বারে নেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এসব মন্তব্য করেন। যুক্তফ্রন্টের সাত দফা প্রস্তাবনা নিয়ে জানতে চাইলে বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, আমরা তো সাত দফা অনেক আগেই প্রকাশ করেছি। ওইটা দেখেন। সব পরিষ্কার হয়ে যাবে। যুক্তফ্রন্ট এর সাত দফা নিয়ে তিনি কিছু জানেন না। আমি তো এখনও পাইনি। প্রস্তাব পেলে আলোচনা হবে।

জাতীয় ঐক্যে জামায়াতে ইসলামীর থাকা, না থাকার গুঞ্জন নিয়ে ওই ঐক্য প্রক্রিয়ার আহবায়ক বলেন, আমি বিষয়টি খোলাসা করেছি। স্বাধীনতাবিরোধীদের নিয়ে ঐক্যে আমরা যাব না। জামায়াত বিষয়ে আর কোনও কথা বলব না।

‘আমাদের ছাড়া কোনও জাতীয় ঐক্য সম্ভব নয়’ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিরোধী দল জাতীয় পার্টির দেওয়া এমন্তবের জবাবে সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল বলেন, দেশে ঐক্যমত্য আছে। সকলেই সুষ্ঠু নির্বাচন চায়, কার্যকর গণতন্ত্র ও আইনের শাসন চায়। সাংবিধানিক শাসন চায়।

কানাঘুষা হচ্ছে, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় বিএনপি বাদে কোন কারোরই জনভিত্তি নেই- বিষয়টি কিভাবে দেখছেন জানতে চাইলে অন্য দল বা ব্যক্তির ভাবনাকে উড়িয়ে দেন প্রবীণ এই আইনজীবী। বলেন, অন্যের কথা আমি জানি না।

জাতীয় ঐক্য কি পারবে সরকারের অনমনীয় অবস্থানে বরফ গলাতে? এমন প্রশ্নে কিছুটা উষ্মা প্রকাশ করে বলেন, এটা সরকারকে জিজ্ঞাসা করেন। আমরা জনগণের জন্য একটা সুযোগ তৈরি করতে চাই।

নির্বাচনকালীন সরকারে যদি সরকার পক্ষ থেকে আপনার নাম প্রস্তাব করা হয়, তখন আপনার অবস্থান কি হবে- জবাবে বিষয়টি কাল্পনিক কিংবা গায়েবী বলেন কামাল হোসেন। এগুলো বিবেচনারলযোগ্য নয়, হলে জানাব।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তিতে দলের আইনি লড়াইয়ের পর্যাপ্ততা ও কারাগারের ভেতর আদালত বসানো নিয়ে আপনার মূল্যায়ন কি? বিষয়টি আদালতে বলবে বলে এড়িয়ে যান ড. কামাল হোসেন।

সূত্র জানায়, যুক্তফ্রন্টও তাদের সাত দফা প্রস্তাব দুয়েকদিনের মধ্যে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহবায়কের কাছে পেশ করবেন। তখন গণফোরাম ও যুক্তফ্রন্ট এর সাত দফা রফা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত