প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীনে উইঘু মুসলিমদের ওপর দমন-নিপীড়ন অব্যাহত থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

সাইদুর রহমান: চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের সংখ্যালঘু উইঘু মুসলিমদের ওপর রাষ্ট্রীয় দমন-নিপীড়ন অব্যাহত থাকায় দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়ার কথা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ বিষয়ে গভীর উদ্বেগের কথা জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে চীনের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তা এবং কয়েকটি কোম্পানির ওপর অচিরেই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হবে। বিশেষত যেসব কোম্পানি উইঘু মুসলিমদের ওপর টর্চারিং করতে পর্যবেক্ষণ যন্ত্রপাতি এবং বন্দিশালা তৈরি করে।

মার্কিন কংগ্রেস সূত্র জানিয়েছে, চীনের সংখ্যালঘু উইঘু মুসলিমদের ওপর রাষ্ট্রীয় দমন-নিপীড়ন বেড়ে যাওয়ায় ট্রাম্প প্রশাসন আরও অর্থনৈতিক অবরোধ দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে।

এছাড়া ডেমোক্র্যাট এবং রিপাবলিকান পার্টির সিনেটররা পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এর কাছে চীনের এসব দমননীতি চর্চাকারীদের অবরোধ দিতে চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে জিনজিয়াং এর কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান চেন কংগোসহ অন্যান্য অভিযুক্তদের নাম রয়েছে।

এর আগে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানেয়ে ছিল, উইঘু ও অন্যান্য মুসলমানদের ক্যাম্পে বন্দি করে রাখা হয়েছে এবং তাদের মধ্যে ইসলামিক রীতি-নীতি-সম্ভাষণ পালন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। চীনা ম্যান্ডারিন ভাষা শেখা এবং তাদের প্রচার গান (চীনের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ সংক্রান্ত প্রচার) গাওয়া বাধ্যমূলক করা হয়েছে।

এছাড়া মুসলমানদের দেশটির কমিউনিস্ট মতবাদ গ্রহণে বাধ্য করা হচ্ছে। আর এটি করতে তাদের ওপর নানা রকমের নির্যাতন চালানো হচ্ছে। নির্বিচার আটক, প্রতিদিনকার ধর্মীয় রীতি-নীতি পালনে নিষেধাজ্ঞা, ‘জোরপূর্বক রাজনৈতিক মতাদর্শে দীক্ষাদান’ এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযানের শিকার হচ্ছেন তারা। জিনজিয়াং ছেড়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাওয়া মুলমানদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পেয়েছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। সূত্র: রয়টার্স

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ