প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাখি যখন পরিচ্ছন্নতাকর্মী !

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাখিদের বুদ্ধিমত্তা নিয়ে আমাদের অনেক গল্প আছে। এটিই প্রথম কোনো উদাহরণ নয়। কিভাবে বিভিন্ন কৌশলগত সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় কাকের মস্তিষ্ক বিভিন্ন বুদ্ধিদীপ্ত আচরণ করে, ঠিক মানুষের মতোই।  এখন বিজ্ঞানীরাই প্রমাণ করেন, সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে কাকের এক ধরনের সক্ষমতা আছে।

আর এই সক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে ফ্রান্সের পশ্চিমাঞ্চলে একটি থিম পার্কে বুদ্ধিমান ছয় পাখিকে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন ধরনের ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করে পার্ককে ফিটফাট রাখাই এদের কাজ।পার্কে নিযুক্ত কাকগুলোকে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে সিগারেটের টুকরা, ছোটখাটো আবর্জনা সংগ্রহ করার জন্য। তারা ময়লাগুলো সংগ্রহ করে একটি বাক্সে জমা করে, আর কঠিন এই কাজের বিনিময়ে পারশ্রমিক হিসেবে পায় পর্যাপ্ত খাবার।- খবর বিবিসি

ইতিমধ্যে পরিচ্ছন্নতাকর্মী প্রথম দলের কাকেরা এরই মাঝে তাদের বরাদ্দ করা পদ অনুসারে দায়িত্ব পালন করতে শুরু করেছে। বাকিরা আজ রোববার(১২আগষ্ট) কাজে যোগ দেওয়ার কথা।

পার্কের প্রধান নিকোলাস দে ভিলিয়ার্স সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানান, এই পাখিদের কেবল উদ্যান এলাকা পরিচ্ছন্ন রাখার উদ্দেশ্যেই নিয়োগ দেওয়া হয়নি, কারণ সাধারণত দর্শকরাই পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে সাবধানী।

‘প্রকৃতি নিজেই আমাদের শেখাতে পারে চারপাশের যত্ন নেওয়ার ব্যাপারে’—মানুষকে এই জিনিসটা বোঝানোর জন্যই মূলত এদের নিযুক্ত করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন নিকোলাস।

পার্কপ্রধান আরো বলেন, দাঁড়কাক ও ডোমকাক গোত্রের এই পাখিগুলো ‘বিশিষ্ট বুদ্ধিমান’ পাখি, এবং এরা ‘খেলার ছলে মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করতে ভালোবাসে।’

বিজ্ঞানীরা লক্ষ করেন, বিশেষ এক ধরনের মেশিন, যেখানে নির্দিষ্ট আয়তনের টোকেন জমা দিলে খাবার পাওয়া যায়। কাকেরা সেটি মনে রাখতে পারে এবং খাবার সংগ্রহের উদ্দেশ্যে সেই আয়তন অনুসারে মেশিনে টোকেন জমা দিতে পারে। শুধু তাই নয়, কোনো টোকেনের আয়তন যদি বড় হয়, তাহলে সেটি ঠোঁট ও নখ দিয়ে ছিঁড়ে প্রত্যাশিত আয়তনে নিয়ে আসতেও সক্ষম তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত