প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুসলমানকে বিয়ের পর হিন্দুত্ব থাকেনা:দিল্লীর মন্দির

কায়কোবাদ মিলন: কোলকাতার বাসিন্দা ইমতিয়াজুর রহমান ২০ বছর আগে হিন্দু নারী নিবেদিতা ঘটককে বিয়ে করেন। নিবেদিতা ২০ দিন আগে মারা যান দিল্লীতে। দিল্লীতেই হিন্দু মতে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। মুসলমানের সঙ্গে বিয়ে হলেও হিন্দু মতাদর্শ তিনি ত্যাগ করেননি। যদিও তাদের বিয়ে হয়েছিল আন্তধর্মীয় বিয়ের আইনানুসারে।

পশ্চিমবঙ্গের মাঝারি মাপের সরকারি কর্মকর্তা অবশেষে হিন্দু মতে স্ত্রীর শ্রাদ্ধ করতে দিল্লীর চিত্তরনজন পার্কের কাছের কালী মন্দিরে ১৩শত রুপি দিয়ে জায়গা বুক করেন। কিনতু মন্দির কর্তৃপক্ষ পরবর্তীতে জানায়, তারা বিশেষ কারণে এই বুকিং বাতিল করছেন। মন্দির পরিচালক ভৈামিক জানান, এই শ্রাদ্ধের ব্যাপারে সত্যিকার পরিচয় গোপন করা হয়েছে। তার মেয়ের নামে মন্দিরের বুকিং নেয়া হয়েছে। মেয়ের নাম হল ইহিনি আমব্রীন। এতে সে যে মুসলমান তা বোঝা যায়না আবার তার বাবার নাম ইমতিয়াজুর রহমান।
ভেীমিক আরও বলেন, পুরোহিতের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ হলে গোত্রের ব্যাপারে জানতে চান। কেননা হিন্দু ধর্মের শাস্ত্রীয় অনুষ্ঠাণে এটা জানা জরুরি। কিন্তু এর কোন সদুত্তর পাননি। কেননা মুসলমানদের এর প্রয়োজন নেই। পুরোহিত সিদ্ধান্ত নেন কেউ হিন্দু ধর্ম থেকে বেরিয়ে গেলে তার আর হিন্দুত্ব থাকেনা। তাছাড়া প্রতিবেশীরাও অনুরূপ অভিমত ব্যক্ত করেছে। এখন মুসলমান সমাজের রীতিনীতিই তার রীতি।

মন্দিরের প্রধান ভেীমিক বলেন, মহিলা হিন্দু মতে অটল ছিলেন কিম্বা তার শেষকৃত্য হিন্দু মতে করতে চেয়েছেন বলে বলা হয়েছে। কিন্তু কোন বদমতলবও থাকতে পারত। দেখা গেল ৫০ জন লোক মন্দিরের ভেতরেই নামাজ পড়তে শুরু করে দিল। আমরা কি তা মেনে নিতে পারি?

ভেীমিক বলেন, ইমতিয়াজ নিজেও যদি তার স্ত্রীর ধর্ম পালন করতেন তাহলে তারা বাড়ীতেই শ্রাদ্ধ করতে পারতেন।
এদিকে ইমতিয়াজ বলেছেন, ধর্ম বিশ্বাস ব্যক্তিগত ব্যাপার। তিনি যে হিন্দু স্ত্রী নিয়ে ২০ বছর ঘর করলেন তার তো কোন অসুবিধে হয়নি। তার স্ত্রীতো বাড়ীতে হিন্দু মতেই চলতেন। তিনি বলেন, তার স্ত্রীর অন্তিম ইচ্ছে ছিল হিন্দু মতে যেন তার শেষকৃত্য হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্য তা হলনা। হিন্দুস্তান টাইমস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ