প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তিনি ১৭টি লাশ কাঁধে নিয়ে, ১৭ কোটি মানুষের জন্যে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন

আমান-উদ-দৌলা : সমগ্র জাতির এই সংগ্রামকে। ‘মিথ্যাচার ও গুজব রচনা করে।

ঢেকে দেয়ার চেষ্টা হয়েছে বহুবার। বাংলাদেশের বহু মানুষকে

‘জানে মারার চেষ্টা’ করা হয়েছে। মিথ্যাচারের যত চেষ্টাই হোক। পারবে না কেউ।

বললেন, হাসানুল হক ইনু।

তথমন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের। তিনি ছিলেন প্রধান অতিথি।

আলোচনা সভা ছিল মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক কমান্ডের।

গতকাল ৯ আগস্ট ২০১৮ সকালে। জাতীয় প্রেসক্লাবের দোতালা সেমিনার রুমে।

শফিকুর রহমান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি। তিনি জানান।

‘১৭টি লাশ কাঁধে নিয়ে। ১৭ কোটি মানুষের জন্যে। নিরলস

পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাঁর নাম শেখ হাসিনা’।

মৃণাল কৃষ্ণ রায়। বাংলাদেশের একজন প্রবীণতম সাংবাদিক।

সেখানে বক্তব্য রাখেন।

(উল্লেখ্য ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের ‘শব্দ সৈনিক’ ছিলেন।

তিনি পাকিস্তানপন্থী হামিদুল হক চৌধুরীর মালিকানাধীন।

পাকিস্তান অবজার্ভার থেকে ভারতের কলকাতায় যান, ১৯৭১ সালে।

সেখানে মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক। কর্নেল ওসমানীকে নিয়মিত তথ্যসহযোগিতা করেছেন।

তিনি নিয়মিত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক। বিভিন্ন রণাঙ্গন থেকে আসা সংবাদের।

নিউজএডিটরের ভূমিকা পালন করেন।

এদিকে, ৭১-এ তখন। অবজার্ভারে সম্পাদক ছিলেন। প্রখ্যাত সাংবাদিক আব্দুস সালাম। নিউজ এডিটরের দায়িত্বে ছিলেন, এ বি এম মূসা। তিনিও মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন।)

আরো বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া।

মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক কমান্ডের সভাপতি। বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং প্রখ্যাত সাংবাদিক।

শাহাবুদ্দিন পেয়ারা বললেন।

‘বিগত হাজার বছর ধরে, বাঙালি যে ‘মুক্তির-স্বপ্ন’ দেখে আসছিলো।

তা শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১-এ বাস্তবে ঘটান। এবং আগামী হাজার বছর ধরে সেই স্বপ্ন।

বাস্তবে রূপান্তর করার। মহানায়ক থাকবেন শেখ মুজিব’।

তিনি আরো বলেন। ৪ কর্নেল। ৩ মেজর। ২৫ সৈনিক। শেখ মুজিবকে ১৫ আগস্ট ১৯৭৫-এ হত্যা করেছে।

কিন্তু এই হত্যাকা-ের পেছনে। বাঙালির ইতিহাস মুছে দেবার। যে প্রচেষ্টা ছিলো।

তা সফল হয় নাই।

লেখক : কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, দৈনিক আমাদের নতুন সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ