প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘৪০ ঊর্ধ্ব গৃহিণী স্কুল ড্রেস গায়ে হয়ে গেলো কোমলমতি শিক্ষার্থী’ (ভিডিও)

ডেস্ক রিপোর্ট : নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন পুঁজি করে অনেকে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চেয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি, জামায়াত, এক-এগারোর সময় যারা ফায়দা লুটেছিলো তারা সবাই মিলে দেশে একটি বিশেষ পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চেয়েছিলো। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য তারা কোমলমতি শিশুদের ওপর ভর করে দেশে বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি করতে চেয়েছিলো।’

তিনি বলেন, ‘স্কুল এবং কলেজের ছাত্ররা শুরু দিকে যে আন্দোলন গড়ে তুলেছিলো তাতে আমাদের সমর্থন ছিলো। সরকার এবং আমরা সবাই তাদের পাশে ছিলাম। প্রথম কয়েকদিন আন্দোলনটা তাদের হাতে ছিলো। কিন্তু এরপর আমরা দেখতে পেলাম, ২৫, ৩০, ৩৫ বছরের যুবক এবং ৩০, ৩৫, ৪০ বছরের কিছু গৃহিনী স্কুল পোশাক পরে কোমলমতি শিশু হয়ে গেলেন।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘৪০ বছরের মহিলা। দেখলাম ছালায়ার কামিজ পরা। আবার স্কুলের পোশাক। হাতে সিগারেট। উনিই কোমলমতি শিক্ষার্থী হয়ে গেলেন। আর ৩০ বছরের যুবক মুখে দাড়ি ও ঘাড়ে স্কুলের ব্যাগ এবং সেই ব্যাগের মধ্যে চাপাতি ও পাথর নিয়েও কোমলমতি শিক্ষার্থী।’

তিনি বলেন, ‘এই কোমলমতি শিক্ষার্থী যখন মাঠে নামলো তখন আমরা বলেছিলাম, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বিএনপি-জামায়াত ফায়দা লুটার জন্য অনুপ্রবেশ করেছে।’ সময় টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ