প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সড়ক মহাসড়কে গণপরিবহন না থাকায় ট্রেন, বিআরটিসিতে উপচে পড়া ভীড়

মো. ইউসুফ আলী বাচ্চু: অঘোষিত পড়িবহন ধর্মঘটের কারণে সড়ক মহাসড়ক প্রায় পরিবহন শুন্য ফলে বারতি চাপ বাড়ছে সরকারী পরিবহন ট্রেন, ও বিআরটিসি বাসে।

শুক্রবার ঢাকাসহ সকল জেলার খোঁজ নিয়ে জানা যায় প্রায় জেলারই দুরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস বন্ধ রয়েছে।
রাজধানীতে বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর প্রতিবাদে নিরাপদ সড়কের দাবিতে গত পাঁচদিন রাস্তায় আন্দোলন করেছে ঢাকার বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার সকাল পর্যন্ত রাস্তায় গণ পরিবহনের সংখ্যা একেবারেই কম। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে কিছু গনপরিবহন রাস্তায় দেখা যায়। তবে দুর পাল্লার বাস একেবারেই বন্ধ রয়েছে।

কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশনে দেখা যায় ট্রেনে তিলঠাই নাই যে যেমনকরে বাদুর-জোলা হয়ে গন্তেব্যের দিকে ছুটছে। আর এই অঘোষিত ধর্মঘটের কারনে বেশি বিপদে পরেছে নারী ও শিশুরা। তবে মহানগরীতে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিআরটিসি বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল হওয়ায় ছিল উপচেপরা ভীর।

ময়মনসিংহ

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস বন্ধ রয়েছে। এতে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মাওনা চৌরাস্তায় গিয়ে দেখা যায়, দূরপাল্লার যাত্রীরা দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে বাস না পেয়ে লেগুনা ও পিকআপে করে গন্তব্যে রওনা হচ্ছেন। আবার ময়মনসিংহগামী লোকাল বাস ও লেগুনাগুলো ভালুকা ও ত্রিশাল পর্যন্ত যাচ্ছে। আবার কেহ কেহ ট্রনের আশায় ষ্টেশনে ছুটছে। ট্রেনে উপচেপড়া ভীর থাকার কারনো কারো চেষ্টা বিফল হচ্ছে।

পটুয়াখালী

সড়কের যানবাহন চলাচলে নিরাপত্তা প্রদানের দাবিতে পটুয়াখালী থেকে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার সকল রুটের বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে পটুয়াখালী বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি। পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই শুক্রবার সকাল থেকে সকল রুটের বাস চলাচল বন্ধ থাকায় সাধারণ যাত্রী ও কুয়াকাটায় আগত পর্যটকরা অনেকটা বিপাকে পড়েন।

রাজশাহী

জানা যায় রাজশাহী থেকে সকল রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে মালিকপক্ষ। সড়কে নিরাপত্তার শঙ্কায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মালিকরা।

তবে বাস বন্ধের খবরে পথে নেমে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। বাধ্য হয়ে বিকল্প যানে চাপছেন কেউ কেউ। বাস বন্ধ থাকায় চাপ বেড়েছে বিভিন্ন গন্তব্যের ট্রেনে। আসন না পেলেও অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে গন্তব্যে পাড়ি দিচ্ছেন অনেকেই।

রংপুর

দেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণে নিরাপত্তার অভাবে রংপুরে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা। শুক্রবার সকাল থেকে জেলার কোনো রুটেই বাস চলাচল করতে দেখা যায়নি। তবে কার নির্দেশে বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে সে ব্যাপারে সরাসরি দায় নিচ্ছেন না পরিবহন মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা।

মেহেরপুরে

মেহেরপুরে নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে দূরপাল্লা ও আন্তঃজেলায় বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে পরিবহন শ্রমিকরা। যাত্রী, চালক এবং গাড়ির নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্রীয় ফেডারেশনের সিদ্ধান্তে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এদিকে বাস বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা। অনেকেই পরিবার পরিজন নিয়ে পড়েছেন চরম বিপাকে।

সিরাজগঞ্জ

যানবাহন ভাঙচুরের প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে মালিক-শ্রমিকরা সংগঠন। শুক্রবার সকাল থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়।
হবিগঞ্জে শুক্রবার সকাল থেকে আন্তঃজেলার সকল সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বগুড়া

বগুড়া থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকেই বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বাস মালিকরা। শুক্রবারও এ ধারা অব্যাহত রয়েছে।

চালকরা বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের বাস চালানোর জন্য বলা হলেও তারা বাস চালাচ্ছে না। তারা বলছে তাদের দাবি আছে। সেই দাবিগুলো সরকার মেনে নিলে বাস চলাচল শুরু হবে।

জাবালে নূর বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনকে ঘিরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় থেকে দূর পাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

নিরাপত্তার স্বার্থে শুক্রবার সকাল থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহর থেকে দূরপাল্লার কোনো রুটে বাস ছেড়ে যায়নি। এতে করে দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। অনেকে বিকল্প হিসাবে ট্রেনে বাড়তি যাত্রী হয়ে গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করেছে।
পরিবহন নেতারা জানিয়েছেন, বাস ও চালকদের নিরপত্তার স্বার্থে অনির্দিষ্টকালের জন্য বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। সকাল থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ভাদুঘরস্থ পৌর বাস টার্মিনাল ও পৈরতলা বাস স্ট্যান্ড থেকে ঢাকা, সিলেট, কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম অভিমুখে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি।

জয়পুরহাট

ঢাকায় পরিবহন ভাঙচুরের প্রতিবাদে জয়পুরহাটে শুক্রবার সকাল থেকে মালিক-শ্রমিকদের ডাকে শুরু হয়েছে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।

পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা জানান, ঢাকায় বিভিন্ন পরিবহনে ভাঙচুর করছে শিক্ষার্থীরা। এতে শ্রমিক ও মালিকদের জানমালের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এ কারণে জয়পুরহাট থেকে দূরপাল্লা ও আঞ্চলিক বাস চলাচল বন্ধ রেখে কর্মবিরতি পালন করছে তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ