প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘তোমরা কি আমাদের জন্য কিছু করতে পারো?’

ডেস্ক রিপোর্টঃ  ‘আমরা ব্রোকেন ফ্যামিলি চাই না। আমরা বাবা-মা, দুজনের সঙ্গে থাকতে চাই। তোমরা কি আমাদের জন্য কিছু করতে পারো?’ সাত বছরের রাবিয়াহ আলমের এ কথায় চোখ ভিজে যায়। রাবিয়াহ আলম ছোট ও বড় পর্দার একসময়ের জনপ্রিয় তারকা ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তী আর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক খোরশেদ আলমের বড় মেয়ে। জানা গেছে, রাবিয়াহ আলম কথাগুলো বলেছে ঢাকার পারিবারিক আদালতের দ্বিতীয় অতিরিক্ত সহকারী জজ ইশরাত জাহানকে।

গত ৭ মে শ্রাবন্তীকে তাঁর স্বামী মোহাম্মদ খোরশেদ আলম  তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন। এরপর ২২ জুলাই এই নোটিশকে অবৈধ দাবি করে ঢাকার পারিবারিক আদালতে ‘দাম্পত্য সত্ত্ব পুনরুত্থান’ মামলা করেন শ্রাবন্তী। আজ মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকার পারিবারিক আদালতের দ্বিতীয় অতিরিক্ত সহকারী জজ ইশরাত জাহান পারিবারিক মোকদ্দমা নিষ্পত্তি না হওয়া সেই তালাকের নোটিশের কার্যক্রম স্থগিত করেছেন।

আজ সকালে ঢাকার পারিবারিক আদালতে মামলার শুনানি হয়। আদালতে শুনানির পর দুপুরে দ্বিতীয় অতিরিক্ত সহকারী জজ ইশরাত জাহান মীমাংসার জন্য শ্রাবন্তী ও মোহাম্মদ খোরশেদ আলম আর তাঁদের দুই মেয়ে রাবিয়াহ আলম ও আরিশা আলমকে নিয়ে নিজ কামরায় বসেন। বিচারক এই স্বামী-স্ত্রীর কাছ থেকে তাঁদের অভিযোগ শোনেন, তাঁদের সন্তানদের কথা শোনেন, এই দম্পতির সঙ্গে আলোচনা করেন এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেন।

শ্রাবন্তীর পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন আইনজীবী ফওজিয়া করিম, ফিরোজা পারভীন ও মলয় সাহা আর খোরশেদ আলমের পক্ষে হাবিবুর রহমান। এ সময় শ্রাবন্তীর সঙ্গে ছিলেন নাট্য পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী।

শ্রাবন্তী দীর্ঘদিন যাবৎ যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। গত ২৫ জুন তিনি দেশে ফিরেছেন। যুক্তরাষ্ট্রে থাকতেই স্বামীর পাঠানো তালাকের এই নোটিশের খবর পান তিনি। এরপর দ্রুত দুই মেয়েকে নিয়ে দেশে এসেছেন। তাঁদের বড় মেয়ে রাবিয়াহ আলমের বয়স সাত আর ছোট মেয়ে আরিশা আলমের সাড়ে তিন বছর। শ্রাবন্তী অভিযোগ করেন, দেশে ফিরে তিনি খোরশেদ আলমের সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করেছেন, কিন্তু বারবারই ব্যর্থ হন। এদিকে খোরশেদ আলম জানান, শ্রাবন্তী দেশে ফেরার পর আজ আদালতে প্রথম তাঁর সঙ্গে দেখা হয়েছে। আজ আদালতে ছোট মেয়েকে কোলে নিয়ে রেখেছেন। এ ছাড়া আজ মেয়েকে নিজের বাসায় নিয়ে যান।

২০১০ সালের ২৯ অক্টোবর খোরশেদ আলম ও শ্রাবন্তীর বিয়ে হয়। কিছুদিন পর তাঁরা যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। এর মধ্যেই তাঁদের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। দেশে ফিরে গত ২৬ জুন খিলগাঁও থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা করেন শ্রাবন্তী। প্রথম আলো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ