প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বার্সায় অভিষেকেই বাজিমাত করলেন ব্রাজিলিয়ান আর্থার

স্পোর্টস ডেস্ক: কেন তাকে কেনার জন্য কাড়াকাড়ি বাঁধিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা, সেটি প্রথম ম্যাচেই বুঝিয়ে দিলেন আর্থার মেলো। বার্সেলোনার জার্সি গায়ে অভিষেক ম্যাচেই গোল করলেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার। শুধু গোল করাই নয়, বার্সেলোনার হয়ে প্রথম ম্যাচেই দেখিয়েছেন জাদু। ২১ বছর বয়সী আর্থারের উজ্জীবিত নৈপুণ্যে মুগ্ধ বার্সেলোনার কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে। বার্সেলোনার সমথকেরাও নয় কি!

এই তো গত ডিসেম্বরের কথা। আর্থার তখন খেলতেন ব্রাজিলিয়ান ক্লাব গ্রেমিওতে। স্বদেশি এই ক্লাবটির হয়ে আর্থার গত মৌসুমটিতে এতোটাই আলো ছড়ান যে, তাকে দলে টানার জন্য রীতিমতো যুদ্ধ শুরু করে দেয় রিয়াল ও বার্সেলোনা। বার্সার প্রস্তাবের বিপরীতে রিয়ালও দিয়ে বসে পাল্টা প্রস্তাব। ডিসেম্বরে দুবাইয়ে ক্লাব বিশ্বকাপ চলাকালে রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ সরাসরিই গ্রেমিও’র সভাপতির সঙ্গে বৈঠক করেন।

কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি। শেষ পর্যন্ত যুদ্ধে জিতেছে বার্সেলোনাই। গত মার্চে ৩০ মিলিয়ন ইউরোয় এই তরুণের সঙ্গে চুক্তি সেরে ফেলে কাতালন ক্লাবটি। তবে তখন চুক্তি করলেও শর্ত ছিল, আর্থার আনুষ্ঠানিকভাবে ন্যু-ক্যাম্পে যোগ দেবেন জুলাইয়ে। সেই শর্ত মেনেই গত ১২ জুলাই নতুন ঠিকানায় উঠেন আর্থার।

আর যোগ দিয়েই প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতি নিতে আর্থার দলের সঙ্গে উড়ে গেছেন যুক্তরাষ্ট্রে। আজ রোববার সকালে যুক্তরাষ্ট্রেরই ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রাক-মৌসুম টুর্নামেন্ট আন্তর্জাতিক চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ম্যাচে টটেনহামের মুখোমুখি হয়েছিল বার্সেলোনা। তো এই ম্যাচেই তরুণ আর্থারকে মাঠে নামিয়ে দেন বার্সা কোচ। ব্রাজিলিয়ান তরুণ আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন দারুণভাবে।

বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া খেলোয়াড়েরা এখনো রয়েছেন ছুটিতে। বার্সা কোচকে তাই বাধ্য হয়েই হাত বাড়াতে হয় তরুণদের দিকে। তো ম্যাচের শুরুতেই বার্সেলোনাকে এগিয়ে দেন মুনির এল হাদ্দাদি। প্রথমার্ধেই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অভিষিক্ত আর্থার। দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়িয়ে টটেনহাম অবশ্য দুটি গোলই শোধ করে দেয়। তবে ইংলিশ ক্লাবটির শেষ রক্ষা হয়নি। টাইব্রেকারে বার্সেলোনাই জিতেছে ৫-৩ ব্যবধানে।

ম্যাচটাতে জয়ের চেয়েও বার্সেলোনার জন্য বড় পাওয়া আর্থারের নজরকাড়া পারফরম্যান্স। গত কয়েক মৌসুম ধরেই জাভি-ইনিয়েস্তাদের যোগ্য উত্তরসূরি খুঁজে বেড়াচ্ছে বার্সেলোনা। মাঝমাঠে একজন জাভির বিকল্পের সন্ধ্যানে পাঁচ পাঁচজন খেলোয়াড়কেও কিনেছে বার্সা। ঢেলেছে প্রায় ৩০০ মিলিয়ন ইউরো। কিন্তু তাদের কেউই জাভির শূন্যতা পূরণ করতে সক্ষম হননি। আর্থার যেন প্রথম ম্যাচেই বুঝিয়ে দিলেন, আগামীতে আর বার্সাকে ‘জাভি’র জন্য হাহাকার করতে হবে না।

বুঝিয়ে দিয়েছেন বয়স কম হলেও মাঝমাঠের সৈনিক হিসেবে দলের খেলা তিনি ঠিকই তৈরি করতে পারেন। কোচ ভালভার্দে তরুণ এই সৈনিকের খেলঅ দেখে অভিভূত, ‘সে এমন একজন খেলোয়াড়, যে আমাদের অনেক কিছু দিতে পারবে। সে জানে কিভাবে বল পেতে হয়, দলের খেলাটা কিভাবে তৈরি করতে হয়। প্রথম ম্যাচেই সে এটা দেখিয়ে দিয়েছে।’

আর্থার প্রশংসার ঝাপি এখানেই বন্ধ করেননি বার্সা কোচ, ‘গোল করতে হলে কিভাবে গোল করার মতো জায়গায় যেতে হয়, সেটাও সে দেখিয়েছে। সত্যিই দারুণ হয়েছে তার অভিষেক। মাঠে সে খুবই উজ্জীবিত। দলকেও উজ্জীবিত রাখতে পারে। বয়স মাত্র ২১। এই বয়সেই সে কি পরিণত! আমার মনে হয়, আমরা প্রত্যাশিত একজনকেই পেয়ে গেছি।’

কোচের এই প্রশংসা কি তরুণ আর্থারের চ্যালেঞ্জটা বাড়িয়ে দিল? হয়তো। কারণ, এই অভিষেকটা প্রস্তুতি ম্যাচে। এই ম্যাচটা তার ক্যারিয়ারেও যোগ হবে না। তবে প্রস্তুতি ম্যাচের উজ্জীবিত পারফরম্যান্স হয়তো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে খেলার দরজাও খুলে দেবে। আর সেক্ষেত্রে প্রস্তুতি ম্যাচের এই পারফরম্যান্স অবশ্যই তাকে ধরে রাখতে হবে। অন্যথায় বেঞ্চ গরম করেই কাটাতে হবে সময়। আর্থার নিশ্চয় তা চাইবেন না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ