প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিলেট সিটি নির্বাচন: প্রস্তুত ২৯১২ কর্মকর্তা

আশরাফ চৌধুরী রাজু, সিলেট: ঘড়ির কাঁটা টিকটিক শব্দে চলছে বিরামহীন। সময় বয়ে চলেছে আপনমনে। ঘড়ির কাঁটা কখনো-সখনো থমকে যায়, কিন্তু সময় অবিশ্রান্ত। তাই সিলেট সিটি নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরুর ক্ষণ এগিয়ে আসছে খুব দ্রুত। স্থানীয় পর্যায়ের এই সর্বোচ্চ নির্বাচনের জন্য এখন প্রস্তুত দুই হাজার ৯১২ কর্মকর্তা। প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদেরকে প্রস্তুত রেখেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রবিবার দিন শেষে রাত পেরোলেই সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনের ভোট গ্রহণের ডামাঢোল শুরু হয়ে যাবে। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট চলবে একটানা।

এবার সিসিকের চতুর্থ নির্বাচন। এই নির্বাচনকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ইসি। বিশেষ করে নির্বাচনে ভোট গ্রহণের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।সিলেট সিটির ২৭টি ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১৩৪টি, ভোটকক্ষ আছে ৯২৬টি। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে ১৩৪ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, প্রতিটি ভোটকক্ষে একজন করে ৯২৬ জন সহকারি প্রিজাইডিং কর্মকর্তা এবং প্রতিটি ভোটকক্ষে দুইজন করে ১৮৫২ জন পোলিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।সবমিলিয়ে এবার নির্বাচনে দুই হাজার ৯১২ জন কর্মকর্তা প্রত্যক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করবেন।এর বাইরে আরও ২৮৮ জন কর্মকর্তাকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মূল দায়িত্বে থাকা কোনো কর্মকর্তা নির্বাচনে দায়িত্ব পালনে অপারগ হলে এই অতিরিক্ত কর্মকর্তাদের কাজে লাগানো হবে।

এই তিন হাজার ২শ’ কর্মকর্তাকে দুই দিনে দুই ধাপে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম, নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মোখলেছুর রহমানসহ ৩৪ জন প্রশিক্ষক তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান করেন।

সিলেট আ লিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান বলেন, ‘একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অবাধ নির্বাচন করতে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপই গ্রহণ করা হয়েছে।’

এদিকে, নির্বাচনের জন্য প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থাও গ্রহণ করেছে ইসি। শনিবার থেকেই সিলেটে মাঠে নেমেছে ১৪ প্লাটুন বিজিবি। আরও চার প্লাটুন ভোটের দিন কাজ করবে স্ট্রাইকিং ফোর্স ও মোবাইল টিম হিসেবে। নগরীর ২৭ ওয়ার্ডে র‌্যাবের ২৭টি টিম, প্রতি তিন ওয়ার্ড মিলিয়ে একটি করে মোট ৯টি স্ট্রাইকিং ফোর্স, প্রতি সাধারণ কেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ২২ জন সদস্য এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২৪ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।এর বাইরে ৯ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, এক সদস্যের একটি নির্বাচনী ট্রাইবুন্যাল, ৯ জন নির্বাচন পর্যবেক্ষকও ভোটের মাঠে তৎপর থাকবেন।এসব বিষয় গুছিয়ে রেখেছে নির্বাচন কমিশন। আজ বিকাল থেকে সকল কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো শুরু করবে তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ