প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইমরান খানের সামনে যত চ্যালেঞ্জ

ডেস্ক রিপোর্ট: বিতর্কিত নির্বাচনে দলের জয়ের মধ্য দিয়ে পাকিস্তানে সরকার গঠন করতে যাচ্ছেন ইমরান খান। ‘নয়া পাকিস্তান’ গড়ান প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। তবে নতুন সরকার প্রধান হিসেবে তার এ যাত্রা মসৃণ হচ্ছে না। নতুন ক্ষমতাসীন দল হিসেবে তার পিটিআইর সামনে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে।

দুর্বল অর্থনীতি ও কর ব্যবস্থা, শক্তিশালী বিরোধী দল, বিচার বিভাগ, ভঙ্গুর পররাষ্ট্রনীতি প্রভৃতি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে নতুন সরকারকে।

শনিবার আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে চ্যালেঞ্জগুলোর কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অন্য চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলার আগে পিটিআই সরকারের সামনে প্রথমেই যে চ্যালেঞ্জ সেটা হচ্ছে, ইমরান খানের নিজেকেই বদলে ফেলা। গত ২২ বছরের রাজনৈতিক জীবনে সব সময় একজন বিরোধী নেতা ছিলেন তিনি।

বিরোধী নেতার অবস্থান থেকে নিজেকে রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে গড়ে তোলাই হবে তার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। একই সঙ্গে নওয়াজ শরিফের পিএমএল-এন ও বিলাওয়াল ভুট্টোর পিপিপির মতো বিরোধী দলগুলোকে সামলাতে একটি টেকসই কৌশল খুঁজে বের করা।

পরাজয় মেনে নিলেও দলগুলো ইতিমধ্যে নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এবং এর বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছে।

পাকিস্তানের শক্তিশালী বিচার বিভাগ ও এর বিচারিক কর্মকাণ্ড সামলানো হবে নতুন সরকারের অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ। জনগণের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় ও সুশাসনের ‘গ্যারান্টি’র জন্য যে কোনো সরকারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে সব সময় সক্রিয় প্রতিষ্ঠানটি। তবে সুপ্রিমকোর্টের বিচারিক প্রক্রিয়া নিয়েও কিছু সমালোচনা রয়েছে।

এর আগের দুই সরকার প্রয়াত বেনজির ভুট্টোর দল পিপিপি ও নওয়াজের পিএমএল-এনের সুশাসনের অভাব বা দুর্বল প্রশাসন ও দুর্নীতির দিকটি জনগণের সামনে তুলে ধরে প্রতিষ্ঠানটি। ফলে দল দুটির মর্যাদা ও জনপ্রিয়তা অনেকটাই ক্ষুণ্ণ হয়েছে। সুশাসনের প্রশ্নে পিটিআইর ক্ষেত্রে একই পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে।

আরেক বড় চ্যালেঞ্জ দুর্বল অর্থনীতিকে শক্তিশালী করা। বিশ্বেব্যাংকের মতে, পাকিস্তানের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ২০১৭ সালে ৫.৭ শতাংশ থেকে ২০১৮ সালে ৫ শতাংশে নেমে এসেছে। ২০১৯ সালেও এটার বাড়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

এরপরের বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে এ হার ৫.৪ শতাংশ হতে পারে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের দিক দিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের চেয়ে নিচে রয়েছে দেশটি। রিজার্ভ মাত্র ৯.৬ বিলিয়ন ডলার। মাথাপিছু আয়ও বাংলাদেশের চেয়ে কম (১৪৬৩ ডলার)।

দেশের অর্থনীতির আকার ৩০৪ বিলিয়ন ডলারের (২০১৬-১৭ আর্থিক বছর)। তবে অবকাঠামো ও উন্নয়ন খাতে চীনের মতো দেশের বৈদেশিক ঋণ এ অর্থনীতি গিলে ফেলার চেষ্টা করছে।

আন্তর্জাতিক ঋণমান নির্ধারক সংস্থা মুডির এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, দেশটির দুর্বল কর ব্যবস্থাও নতুন সরকারের জন্য আরেক প্রধান চ্যালেঞ্জ। দুর্বল কর ব্যবস্থার সুযোগ নিয়ে দেশটিতে কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কর ফাঁকির ব্যাপক প্রবণতা রয়েছে।

গত বছর ১৫ হাজারেরও বেশি কর্পোরেট করদাতা কর প্রদান করেননি বলে জানিয়েছে ফেডারেল বোর্ড অব রেভিনিউ (এফবিআর)।

চ্যালেঞ্জের তালিকায় রয়েছে ভঙ্গুর পররাষ্ট্রনীতির নতুন নির্মাণ। কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে ভারতের সঙ্গে অচলাবস্থা, সন্ত্রাসবাদ প্রশ্নে আফগানিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চীনের সঙ্গে বাণিজ্য ও কৌশলগত বন্ধুত্বের সম্পর্ক প্রভৃতি সামলাতে হবে নতুন সরকারকে।

৫৬ ঘণ্টা পর ফল প্রকাশ : নির্বাচনের ২৪ ঘণ্টার পুরো ফল প্রকাশের কথা থাকলেও ৫৬ ঘণ্টা পর চ‚ড়ান্ত ফল প্রকাশ করেছে পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন (ইসিপি)। বুধবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার ৫৬ ঘণ্টা পর শনিবার এ ফল প্রকাশ করা হয়।

জিও নিউজ জানায়, ফলে ইমরান খানের দল পাকিস্তান পিটিআই ১১৫টি, পাকিস্তান মুসলিম লীগ (নওয়াজ) ৬৪টি এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ৪৩টি আসন পেয়েছে।

এছাড়া ধর্মীয় দলের জোট মুত্তাহিদা মজলিস-ই-আমল (এমএমএ) ১২টি এবং মুত্তাহিদা কামি মুভমেন্ট-পাকিস্তান (এমকিউএম-পি) ৬টি আসনে জয় পেয়েছে।

এছাড়া পিএমএল-কিউ এবং নতুন দল বেলুচিস্তান আওয়ামী পার্টি (বিএপি) ৪টি করে আসন পেয়েছে। জিডিএ ২টি, বিএনপি ৩টি এবং এএনপি, এএমএল, পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসানিয়াৎ, জেডব্লিউপি ১টি করে আসন পেয়েছে। ১২টি আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। আর কেন্দ্রে হামলার কারণে দুটি আসনে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়।

১৪ আগস্টের মধ্যে শপথ নেবেন ইমরান : ১৪ আগস্টের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করবেন ইমরান খান। শনিবার পিটিআইর অন্যতম নেতা নাঈম-উল-হক এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানান।

সংবিধান অনুসারে, ১৪ আগস্টের মধ্যেই সরকার গঠনের ব্যাপারে বাধ্যবাধকতা রয়েছে। নাঈম বলেন, শপথ অনুষ্ঠানে মূলধারার দলগুলো উপস্থিত থাকবে। নির্বাচিত প্রতিনিধিদের শপথ অনুষ্ঠান আয়োজনে খুব শিগগিরই প্রজ্ঞাপন জারি করবে নির্বাচন কমিশন।

তিনি আরও জানান, কেন্দ্রে ও পাঞ্জাবে সরকার গঠন করবে পিটিআই। এ লক্ষ্যে দিন-রাত কাজ করছেন দলের প্রধান ইমরান খান। খবর জিও নিউজের। যুগান্তর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ