প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বখাটেদের গণধর্ষণের হুমকি, সাঁথিয়ায় গৃহবন্দি কিশোরী

নিজস্ব প্রতিবেদক : বখাটেদের গণধর্ষণের হুমকিতে দুই সপ্তাহ গৃহবন্দি এক কিশোরী। তার স্কুলে যাওয়া বন্ধ। ভীষণ ভয় ও আতঙ্কে কাটছে তার প্রতিমুহূর্ত। ওই কিশোরী পাবনা জেলার সাঁথিয়া পাইলট মডেল হাই স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

বখাটেদের হুমকিতে মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত ওই কিশোরী। তাই সে তার স্বাভাবিক জীবনযাপন, স্কুলে যাওয়ার অনুকূল পরিবেশ তৈরি ও বখাটেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গত ২৫ জুলাই সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে লিখিত আবেদন করেছে। সেই আবেদনটি সাধারণ ডায়েরি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছে থানা পুলিশ।

এদিকে থানায় অভিযোগের খবর পেয়ে বখাটেরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠছে। কিশোরীর পরিবারের সদস্যদের ফোনে নানা ভাবে প্রতিদিন হুমকি দিচ্ছে। কিন্তু কিশোরী থানায় অভিযোগ করার চারদিন পরও বখাটেদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ। অভিযুক্তরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের ধরছে না।

কিশোরীর পারিবারিক সূত্র জানায়, সাঁথিয়া ফকিরপাড়ার মজিদ ফকিরের ছেলে জামায়াত-শিবিরের কর্মী মো. মোজাহিদ (২৫) গত তিন মাস ধরে ওই কিশোরীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। কিন্তু কিশোরী তার প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় মোজাহিদ ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। তাই সে সাঁথিয়ার মহিম গাছার রজব আলীর ছেলে জামায়াত-শিবিরের সন্ত্রাসী মো. রতন (২৭) ও পিপুলিয়ার মো. বকুলের ছেলে মো. আশিক (২২)

এবং তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা প্রায় প্রতিদিনই কিশোরীকে রাস্তাঘাটে উত্যক্ত করে। স্কুলে যেতে কিংবা স্কুল থেকে বাড়ি আসতে রাস্তায় গতিরোধ করে ভয়ভীতি দেখায়। আর এই বখাটেদের নেতৃত্ব দেয় মো. রতন।

জানা যায়, কিছুদিন আগে বখাটেরা কিশোরীকে জোর করে জড়িয়ে ধরে মোবাইলে ভিডিও করে। সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে। এছাড়াও কিশোরীর বাবার মোবাইলে আপত্তিকর ম্যাসেজ পাঠায় ওই বখাটেরা।

কিশোরীর বাবা জানান, আমরা এখন আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। তিনি বখাটেদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান, যাতে তার মেয়ে স্বাধীন ভাবে চলাচল করতে ও স্কুলে যেতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ