প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইমরানের দলের পতাকা কুকুরের গায়ে, অতঃপর…

ডেস্ক রিপোর্ট : পাকিস্তানের নির্বাচন শেষে এখন নতুন সরকার গঠনের হিসাব-নিকাশ চলছে। এরই মাঝে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার এক চরম নজির দেখা মিলল। ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) পতাকা গায়ে জড়িয়ে দিয়ে কুকুরকে গুলি করে মারা হয়েছে। আর ভোট চুরি করে ক্ষমতায় যাওয়ার প্রতিবাদেও এমনটা করা হয়েছে।

খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের এ ঘটনায় আজ শনিবার পুলিশ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে। খাইবার পাখতুনখাওয়া পুলিশের এক টুইটে এ কথা বলা হয়েছে।

টুইটে পুলিশ বলেছে, রাতভর চেষ্টা করে পুলিশ ওই দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে। ওই দুই ব্যক্তি কুকুরকে নির্যাতনের ভিডিও করেন। পুলিশ একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন, যেখানে দেখা যাচ্ছে ওই দুই ব্যক্তি ঘটনার দায় স্বীকার করেছেন।

ট্রিবিউনের খবরে বলা হয়েছে, ওই দুজন খাইবার পাখতুনখাওয়ার বিরোধী দল কওমি ওয়াতান পার্টির কর্মী। তাঁরা হলের বান্নু জেলার জিন্দি আলী খেল এলাকার হজরত ওমর ও নাসিরুল্লাহ।

জিও টিভির খবরে বলা হয়েছে, গত শুক্রবার ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড করা হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, এ দুই ব্যক্তি ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের পতাকা কুকুরের গায়ে জড়িয়ে দেন। বালুর মধ্য পিটিআইয়ের পতাকা গায়ে জড়িয়ে বসে আছে একটি কুকুর। ছবিতে নেই কিন্তু দুই ব্যক্তির কণ্ঠ শোনা যাচ্ছে। এরপরই বর্বরতার সেই নিষ্ঠুর প্রদর্শনী। কুকুরটিকে লক্ষ্য করে একবার নয়, পরপর তিনবার গুলি করা হয়। গুলি করার সময় পিটিআই জালিয়াতি করে নির্বাচনে জয় পেয়েছে বলেও চিৎকার করা হয়।

পুরো ঘটনাটি ভিডিও করেন হজরত ওমর ও নাসিরুল্লাহ। সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেটে। নেটিজেনরা এমন বর্বরকাজ নিয়ে সমালোচনা করছেন বিস্তর।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই দাবি করছেন, প্রাণী অধিকার রক্ষা আইন এ ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা দরকার। দায়ী দুই ব্যক্তিকে বিরুদ্ধে এফআইআর করা হোক।

এর আগে ২৩ জুলাই নির্মম প্রহারের ফলে একটি গাধা মারা যায়। এরও পেছনেও রাজনৈতিক নেতারা জড়িত ছিলেন। ওই গাধার গায়ে একটি রাজনৈতিক দলের নাম লেখা ছিল।
সূত্র : প্রথম আলো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত