প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এবার চীনের সঙ্গে বাণিজ্য ঘাটতি নিয়ে শঙ্কিত ভারত

নূর মাজিদ: চীনের সঙ্গে বর্তমানে ভারতের বাণিজ্য ৮ হাজার কোটি ডলারেরও বেশী। দুই দেশের সরকারই ইতোপূর্বে ২০১৫ সালের মধ্যকার বাণিজ্যের মাত্রা ১০ হাজার কোটি ডলারে উন্নীত করতে চেয়েছিলো। তবে  চীনের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্য ঘাটতির অব্যাহত গতি বৃদ্ধিতে চিন্তিত ভারত। শুধুমাত্র ২০৭-১৮ অর্থবছরেই চীনের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ ৫ হাজার কোটি ডলারে উন্নীত হয়েছে। গত সপ্তাহে প্রকাশিত ভারতীয় পার্লামেন্টের বাণিজ্য বিষয়ক এক স্ট্যান্ডিং কমিটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৩-১৪ সালে চীন থেকে ভারতে পণ্য আমদানির পরিমাণ মাত্র ৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছিলো। কিন্তু চলতি অর্থবছরে চীন থেকে আমদানির মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ২০ শতাংশ। ভারত সরকারের চীনে রপ্তানি বৃদ্ধির সকল প্রচেস্টা স্বত্বেও নিজেদের এই বিপুল পরিমাণ বাণিজ্য ঘাটতি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয় সংসদীয় কমিটির রিপোর্টে।

এই রিপোর্টে আরো জানানো হয়,চীন থেকে অব্যাহত আমদানি বৃদ্ধি ভারতের অর্থনীতি এবং তার শিল্পখাতের বিকাশকে বাধাগ্রস্থ করছে। বিশেষত, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ভারতের মোট বাণিজ্য ঘাটতি ১৫৭ বিলিয়ন ডলার। এর মাঝে ৫০ বিলিয়ন ডলারের ঘাটতি শুধু চীনের সঙ্গে। তবে চীনের সকল আমদানি ভারতে বৈধপথে আসছেনা দাবী করেছে দেশটির সংসদীয় কমিটির চীনা বাণিজ্য নীতি পর্যালোচনা বিষয়ক প্রতিবেদনে। সেখানে জানানো হয়, দক্ষিণ এবং এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার যেসব দেশের সঙ্গে ভারতের শুল্কমুক্ত ও অবাধ বাণিজ্য চুক্তি রয়েছে সেসব দেশ থেকে বিপুল পরিমাণ চীনা পণ্য ভারতে ঐসব দেশের পণ্য ছদ্মবেশে রপ্তানি করা হচ্ছে। এর বাহিরে আন্তঃসীমান্ত চোরাচালান অবৈধভাবে চীনা পণ্যের ভারতের বাজারে প্রবেশ রোধ করাও অসম্ভব হয়ে পড়েছে। স্ট্যান্ডিং কমিটি আরো জানায়, শুধুমাত্র ২০১৭-১৮ অর্থবছরেই ১,১২৭ টি চোরাচালান মামলা রেকর্ড করা হয়, যেখানে মোট ৫৪০ কোটি রুপির চীনা পণ্য বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় শিল্প ও বিনিয়োগকারীরা অন্যায্য প্রতিযোগিতা এবং বিপুল অর্থনৈতিক ক্ষতির শিকার হচ্ছেন বলেই জানানো হয়।

 

এদিকে ভারতীয় অর্থনৈতিক দৈনিক বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড জানাচ্ছে, চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য যুদ্ধ শুরু হবার পূর্বে যুক্তরাষ্ট্রের চীনা বাণিজ্য পর্যালোচনা যে ধারা অনুসরণ করেছিলো সংসদীয় কমিটির বর্তমান রিপোর্টটিও একই সুরে অভিযোগ করছে চীনের বিরুদ্ধে। বিশেষত, যখন মার্কিন-যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য বিরোধে ভারতকে পাশে রাখতে চাইছে চীন। অন্যদিকে ভারতও চীনে তার রপ্তানির পরিমাণ বৃদ্ধি করতে চাইছে। এই বিষয়ে এপ্রিল মাসে অনুষ্ঠিত অনানুষ্ঠানিক শি-মোদি সম্মেলনে চীনের পক্ষ থেকে ভারতকে বাণিজ্য সুবিধা দেবার অঙ্গীকারও করা হয়। তবে এতে সন্তুষ্ট নয় ভারত। চলতি জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বৈঠকে ক্রমবর্ধমান বাণিজ্য ঘাটতি নিয়ে চীনের কাছে নালিশ করে ভারত। ভারতের দাবী শুধু মুখের কথায় চিরে ভিজবেনা। এবং চীনের সঙ্গে তাদের ক্রমবর্ধমান বাণিজ্য ঘাটতি কোনভাবেই চালিয়ে যাওয়া ভারতের পক্ষে সম্ভব নয়।

 

ভারতের শীর্ষ আমলাদের অনেকেও এখন চীনের বিরুদ্ধে আরো দৃঢ় অবস্থান নেবার কথা বলছেন। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক জ্যেষ্ঠ সচিব অনিল ওয়াধওয়াহ জনান, আমরা আশা করি ভারতের তুলা, হীরা, কপার এবং কৃষিপণ্যের আমদানিতে চীন সকল প্রকার শুল্ক বাঁধা তুলে নিক। এর ফলে, দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে কিছুটা হলেও ভারসাম্য ফিরবে। বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড/ বিজনেস লাইন/ টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ