Skip to main content

অক্টোবরের আগে নির্বাচনী জোটের হিসাব মিলছে না

আবুল বাশার নূরু : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিএনপি, বাম দল ও ইসলামী দলের নেতৃত্বে নির্বাচনী জোট গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। নির্বাচনী জোট নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চলছে নানা আলোচনা। ৯ম ও ১০ম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ১৪ দলীয় জোট এবং নির্বাচনী মহাজোট গঠন করে। ৮ম ও ৯ম নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্বে গঠিত হয় চারদলীয় জোট। ১০ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি। এই নির্বাচনের পর বিএনপির নেতৃত্বে গঠিত হয়েছে ২০ দলীয় জোট। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের পরিধি বাড়াতে জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন দলটির নীতি নির্ধারকরা। অপরদিকে বিএনপিও তাদের জোটকে ধরে রাখার পাশাপাশি জোটে শরিকদের সংখ্যা বাড়ানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে রাজনৈতিক মহল মনে করছে, নির্বাচনী জোট গঠন নিয়ে নানা আলোচনা চললেও আগামী অক্টোবরের আগে এর হিসেব মিলবে না। বর্তমান ক্ষমতাসীন মহাজোটের আকার বাড়াতে জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, বিএন জোট প্রধানদের সঙ্গে এরই মধ্যে বৈঠক করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এলডিপি প্রধান কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীর বিক্রম, জেএসডি প্রধান আ স ম আব্দুর রব, বাসদ সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামানের সঙ্গে মোবাইলে একাধিকবার কথা বলেছেন ওবায়দুল কাদের। এছাড়া একাধিক ইসলামী দলের সঙ্গেও কথা বলেছেন তিনি। আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ এই প্রতিবেদককে বলেন, নির্বাচনী মহাজোটের পরিধি বাড়াতে বিভিন্ন দলের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তবে এই মূহুর্তে কিছুই চূড়ান্ত হচ্ছে না। আগামী অক্টোবরের দিকে নির্বাচনী জোট গঠনের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হবে। আওয়ামী লীগের একাধিক শীর্ষ নেতা বলেন, সমমনা বিভিন্ন দলকে নির্বাচনী জোটে আনার পাশাপাশি আসন ছাড় দেওয়ার আলোচনাও চলছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি জোটের বাইরে এরই মধ্যে যুক্তফ্রন্ট নামে নতুন একটি জোটের আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। এছাড়া কয়েকটি বাম দলের সমন্বয়ে পৃথক একটি জোটও আত্মপ্রকাশ করেছে। চরমোনাইয়ের পীরের নেতৃত্বে একটি ইসলামী জোট গঠনের প্রক্রিয়া চলছে। ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরাম, কমিউনিস্ট পার্টি ও বাসদ এখনও কোনো জোট গঠনের ঘোষণা দেয়নি। মহাজোট শরিক এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি আগামী নির্বাচনে এককভাবে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিলেও শেষ পর্যন্ত তারা আওয়ামী লীগের জোটেই থাকবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। আওয়ামী লীগ নেতারাও জোর দিয়ে বলছেন, জাতীয় পার্টি মহাজোটেই থাকবে।

অন্যান্য সংবাদ