Skip to main content

দীর্ঘ লাইনেও ক্লান্তি নেই বিএসএমএমইউ’তে আগতদের

জাফরুল আলম : রাজধানীর শাহবাগে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে রোগীরা আসেন। এতো দূর দূরান্ত থেকে রোগীরা হাসপাতালটিতে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়েও যেন তাদের মধ্যে কোন ক্লান্তি নেই। তাদের চাওয়া একটাই- দেশের সর্ববৃহৎ উন্নত সরকারি হাসপাতালে এসে সঠিক চিকিৎসা পাবেন। এই বিশ্বাস আর আস্থা নিয়েই ছুটে আসেন চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা। সরেজমিনে শনিবার দুপুরে হাসপাতালের বর্হিবিভাগে গিয়ে দেখা যায়, ডাক্তার দেখাতে দীর্ঘ লাইনে শত শত মানুষ দাঁড়িয়ে আছে টিকিট সংগ্রহের জন্য। আবার কেউ এসেছেন রির্পোট দেখানোর জন্য। জানা যায়, হাসপাতালটির ২টি বর্হিবিভাগে সবচেয়ে বেশি রোগীরা ডাক্তার দেখাতে ভীড় করেন। এখানে দু’টি শিফটে দুইভাগে রোগী দেখেন ডাক্তাররা। সকাল ৮টা থেকে ২.৩০ পর্যন্ত। অন্য শিফটে দুপুর ৩ থেকে বিকেল ৬টা পর্যন্ত রোগী দেখা হয়। সকালের প্রথম শিফটে মেডিক্যাল অফিসারগণ রোগী দেখেন। আর বিকেলের শিফটে রোগী দেখেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা। সকালে যারা ডাক্তার দেখাতে আসেন তারা নির্ধারিত ফি ৩০ টাকা এবং বিকেলের ফি ২০০ টাকা। যা সরকারিভাবেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ করেছেন। কথা হয় ওবায়দুর রহমানের সাথে। পেশায় চাকরিজীবী। খুলনায় একটি বেসরকারি কোম্পানীতে কর্মরত। চর্ম বিশেষজ্ঞ দেখাতে ছুটি নিয়ে খুলনা থেকে ঢাকায় এসেছেন। উদ্দেশ্য, বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে চিকিৎসা নিবেন। এতোদূর থেকে চিকিৎসা নিতে আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পায়ের সমস্যায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগছি কিন্তু কোন উন্নতি না দেখে এক সহকর্মীর পরামর্শে পিজিতে আসি।’ ঢাকার মিরপুর থেকে আগত বেলায়েত হোসেন বলেন, সকালের ডাক্তার দেখাতে গেলে ভোর ৫ টায় এসে লাইন ধরতে হয়। আর দুপুরের সিরিয়াল ধরতে ৩ ঘন্টাও লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। কয়টা থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ডাক্তার দেখানোর জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে আছি সকাল ১১টা থেকে। এখানে চিকিৎসা সেবা ভালো, অভিজ্ঞ ডাক্তার পাওয়া যায়। তাই কষ্ট হলেও লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থাকি।’ এছাড়া শিশু বিভাগে গিয়েও দেখা যায়, অভিভাবকরা তাদের শিশুদের নিয়ে ডাক্তার দেখাতে অপেক্ষায় আছেন। এক অভিভাবক জানান, অন্য হাসপাতালগুলোতে সহজেই ডাক্তার দেখানো গেলেও এখানে অভিজ্ঞ ডাক্তার রয়েছে বলে কষ্ট হলেও এখানে বাচ্চাকে নিয়ে আসি। বিকেলের শিফটে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের ফি ২০০ টাকা নেয়ার ব্যাপারে কোন অভিযোগ আছে কি না জানতে চাইলে চিকিৎসা নিতে আসা এক রোগী বলেন, ‘এখানে চিকিৎসার মান ভালো। তাই ২শ’ জায়গায় যদি আরো বেশিও হয়, তবুও মানুষ এখানে আসবে। কারণ এখানে চিকিৎসার মান সারাদেশের অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোর তুলনায় অনেক ভালো এবং আমরা কমমূল্যে চিকিৎসা সেবা নিতে পারি।’

অন্যান্য সংবাদ