প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মেট্রোরেলে ৩৭ মিনিটে চলাচল করবে ৬০ হাজার যাত্রী

আহমেদ জাফার : উত্তরা থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক পর্যন্ত মেট্রোরেলে মাত্র ৩৭ মিনিটে ৬০ হাজার যাত্রী চলাচল করতে পারবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ প্ররিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, মেট্রোরেলে কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।
কাজ সম্পন্ন হলে দেশের মানুষ নিবির্ঘেœ যানজট মুক্ত ভাবে যাতায়াত করতে পারবে। বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের জন্য এটা সুখবর।

এ সরকারের আমলে দেশের ব্যাপক উন্নতির কথা তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, যখন হলি আর্টিজনে হামলা হয় তখন আমরা ভাবছিলাম মেট্রোরেলর কাজ থমকে যাবে। কিন্তু জাপানিরা ভয় না করে কাজে যোগদান করেন। জাপানিরা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের মত এখানে প্রমাণ করে দিয়েছে যে তারা কোনো ভয় কে তোয়ক্কা করে না। এ জন্য তাদের কে ধন্যবাদ জানান এবং যথা সময় কাজ শেষ করার আশা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, এমআরটি লাইন ৬ মেট্রোরেল কাজ খুব দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেলের প্রকল্পটি ২০১২-২০২৪ মেয়াদে বাস্তাবায়নের জন্য গ্রহণ করলেও প্রধানমন্ত্রী দিক নিদের্শনায় বিশেষ উদ্যোগে উত্তরা তৃতীয় ফেইজ হতে আগারগাও পর্যন্ত ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করার তাগিদ দেন। ২০২০সালে ডিসেম্বর মাসের মধ্যে আগারগাও থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক পর্যন্ত মেট্রোরেল কাজ শেষ হবে। এখন পর্যন্ত ১৬% কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া কাজ গুলো প্যাকেজ ভিত্তিক বাস্তবায়নকরা হবে।

মেট্রোরেল কাজ সম্পন্ন হলে দেশের মানুষ নির্বিঘেœ যাতায়াত করতে পারবে। মাত্র ৩৭ মিনিটে ৬০ হাজার লোক উত্তারা থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক পযর্ন্ত যেতে পারবে। এটা বাংলাদেশের জন্য বড় অর্জন।

প্যাকেজ ৬ কারওয়ান বাজার থেকে মতিঝিল ৪.৯২ কি:মি ভায়াডাক্ট ও ৪ টি ষ্টেশন নিমার্র্ণের লক্ষ্যে গত ৩০ এপ্রিল ২০১৮ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সাথে নির্মাণ চুক্তি হয়। আগামী ১ আগষ্ট তারা কাজ শুরু করবে।

এরপরে এমআরটি লাইন ১ বিমানবন্দর রুটে অথ্যাৎ বিমানবন্দর টার্মিনাল৩- খিলক্ষেত -যমুনা ফিউচারপার্ক,নতুন বাজার, উত্তরা ,বাড্ডা, হাতিরঝিল,রাজার বাগ হয়ে কমলাপুর যাবে। এর লাইনের দৈর্ঘ্য হবে ১৬.৪০ কি:মি এবং সম্পূর্ণ অংশ আন্ডার গ্রাউন্ড। মোট ষ্টেশনের সংখ্যা ১২টি। নতুন বাজার থেকে ইন্টার চেনন্স থাকবে এবং বিমানবন্দর রুট থেকে পূর্বাচল এবং পূর্বাচল রুট থেকে বিমানবন্দর রুটে যাতায়াত করা যাবে।

এমআরটি লাইন ২ নতুন বাজার, যমুনা ফিউচার পার্ক, বসুন্ধারা, পুলিশঅফিসার্স, হাউজিং সোসাইটি, মাস্তুল, পূর্র্বাচল পশ্চিম, পূর্বাচল সেন্টার থেকে পূর্বাচল ডিপো পর্যন্ত যাবে। এ লাইনের মোট দৈর্ঘ্য হল ১০.২০ কিলোমিটার এবং সম্পূর্ণ অংশ এলিভেটেড। মোট ষ্টেশন সংখ্যা হবে ৯টি এবং এর মধ্যে ৭টি হবে এলিভেটেড।

তিনি বলেন, শুধু এমআরটি লাইন ৬ নয়, পর্যায়ক্রমে এমআরটি লাইন ১ এবং ২ নিদিষ্ট সময় করা হবে। তার পরে এমআরটি লাইন ৩ ও ৪ এর কাজ করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ