প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রবিবার মুক্তি পাচ্ছেন ফিলিস্তিনি প্রতিরোধের প্রতীক তামিমি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মুক্তি পাচ্ছেন দখলদার ইসরায়েলি সেনাকে থাপ্পড় মেরে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধের প্রতীক হয়ে উঠা আহেদ তামিমি (১৭)। রবিবার ইসরায়েলের কারাগার থেকে তার মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে এদিন তামিমি ও তার মাকে মুক্তি দেওয়া হবে।

ধারণা করা হচ্ছে, মুক্তির পর ফিলিস্তিনি শহর তুলকারেম সংলগ্ন জাবারা চেকপয়েন্ট হয়ে নিজ গ্রামে ফিরবেন তারা। সংবাদ সম্মেলনেরও কথা রয়েছে তাদের।
আহেদ তামিমি’র বাবা বাসেম জানিয়েছেন, স্ত্রী-সন্তানের মুক্তির জন্য তিনি অধীরভাবে অপেক্ষা করছেন। এর বাইরে তিনি কিছু বলতে রাজি হননি।

২০১৭ সালের ১৫ ডিসেম্বর তামিমির বাড়িতে হানা দিয়েছিল দখলদার ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। সেদিন বাড়ির প্রবেশপথে দাঁড়িয়ে দখলদার সেনাদের সেখান থেকে চলে যেতে বলেন ১৬ বছরের তামিমি। কথায় কাজ না হওয়ায় পথ আটকে দাঁড়িয়ে থাকা দুই সেনাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। তাতেও লাভ হলো না। শেষে বাড়ি থেকে বের করে দিতে তাদের থাপ্পড় মারা শুরু করেন। এক পর্যায়ে তার এই দুঃসাহসিক ভূমিকার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। ওই ঘটনায় তামিমি ও তার মাকে গ্রেফতার করে ইসরায়েলি সেনারা। একাধিক দফায় নেওয়া হয় রিমান্ডে। বিপরীতে ফিলিস্তিনের বাইরে যুক্তরাজ্যসহ দুনিয়ার নানা প্রান্ত থেকে তার মুক্তির দাবি উঠে। ১৬ বছরের এক তরুণী হয়ে উঠেন ফিলিস্তিনি জনগণের মুক্তি আন্দোলন ও তৃতীয় ইন্তিফাদার প্রতীকী চরিত্র।
ফিলিস্তিনের রামাল্লাহ শহরের কাছেই নাবি সালেহ গ্রামের বাসিন্দা আহেদ তামিমি। অনেক বছর ধরে তার গ্রামে প্রতি শুক্রবার প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। মাত্র ৯ বছর বয়সে তামিমি প্রথম মিছিলে অংশ নেন।

২০১৫ সালে ১১ বছর বয়সে তার বেশ কিছু ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। একটি ছবিতে মা ও চাচির সঙ্গে মিলে ইসরায়েলি সেনাদের হাত থেকে তার চাচাত ভাই মোহাম্মদকে বাঁচানোর চেষ্টা করতে দেখা যায়। ছবিতে দেখা যায়, আহেদ ভাইকে বাঁচাতে এক ইসরায়েলি সেনার হাতে কামড় দিচ্ছে। ওই ছবি প্রকাশের দুই বছর পর আহেদকে তুরস্কে হানদালা সাহসিকতা পুরস্কার দেওয়া হয়। দখলদার বাহিনীর সামনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ছবির জন্য তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান তাকে সাক্ষাতের জন্য আমন্ত্রণ জানান। শিশু অধিকারের উপর একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার জন্য খোদ যুক্তরাষ্ট্রের একটি সংগঠন তাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। তবে দুঃখজনকভাবে মার্কিন প্রশাসন তাকে ভিসা দেয়নি। সূত্র: আল জাজিরা, দ্য টাইমস অব ইসরায়েল। সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন