প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্লু-ইকোনমি থেকে দেশের অর্থনীতিতে যুগান্তকারী পরিবর্তন ঘটবে

ফাহিম ফয়সাল : ব্লু-ইকোনমি বা সমূদ্রনির্ভর অর্থনীতির সঠিক ব্যবহার করতে পারলে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে যুগান্তকারী পরিবর্তন ঘটবে এবং অনেক বেকারের কর্মসংস্থান হবে।

বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট অডিটরিয়ামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি আয়োজিত ‘অ্যাডাপটেশন মিজার টু ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড সাসটেনেইবল ব্লু-ইকোনমি ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে এ সম্ভাবনার কথা বলা হয়।

সেমিনারে বক্তারা বলেন, সমূদ্রে আমরা যে জায়গা পেয়েছি তাতে অনেক সম্পদ রয়েছে। পরিকল্পিত ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এই সম্পদ সংগ্রহ করতে পারলে দেশের অর্থনীতির আরও অগ্রগতি হবে। বঙ্গোপসাগরের তেল-গ্যাস বাংলাদেশের জ্বালানী নিরাপত্তার পাশাপাশি অর্থনীতির চেহারা পাল্টে দিতে পারে। পাশাপাশি দেশের বিশাল জনগোষ্ঠীর জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবে।

বক্তারা আরও বলেন, সমূদ্র থেকে বিপুল পরিমাণ মৎস্য আহরণ করা যাবে। পাশাপাশি সমূদ্র তীরে কৃত্রিমভাবে বাঁধ তৈরি করে পলিমাটি জমাটের মাধ্যমে দৃষ্টিনন্দন পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তুলে অর্থনৈতিক বিপ্লব ঘটানো সম্ভব। এছাড়া ওষুধের জোগানও আসবে সমুদ্র থেকেই।

বক্তারা বলেন, আমাদের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণে সহায়তা করতে পারে সমুদ্র। সমুদ্রের জোয়ার-ভাটা বা ঢেউকে কাজে লাগিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব।

সেমিনারে প্রধান অতিথি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, বিশ্ব অর্থনীতিতে ব্লু-ইকোনমি নানাভাবে অবদান রেখেছে। ব্লু-ইকোনমির মাধ্যমে বিশ্বের অনেক দেশ দ্রুত উন্নতি করেছে। আমরাও ব্লু-ইকোনমির মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে পারবো।

তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে দেশের ব্লু-ইকোনমির অপার সম্ভাবনা নিশ্চিতকল্পে মেরিটাইম গবেষণা ও শিক্ষার উপর গুরুত্ব দিতে হবে। এক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি মূল ভূমিকা পালন করবে।

সেমিনারে বক্তারা জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বাংলাদেশের জন্য একটি সমন্বিত জাতীয় রোডম্যাপ তৈরির কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ সেন্টার ফর অ্যাডভান্স স্টাডিজের নির্বাহী পরিচালক ড. মো. আতিক রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওশানোগ্রাফি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. কাওসার আহমেদ, ড. এ এস এম মঞ্জুরুল হান্নান খান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধি নাদিয়া শারমীন। বিশেষ অতিথি ছিলেন আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর এ এম এম শফিউল্লাহ। এছাড়া স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত