প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘কোটা সংস্কার আন্দোলনে আহতদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা উচিত’

আশিক রহমান : কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরুসহ যারাই আহত হয়েছে তাদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা উচিত বলে মনে করেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, আইন মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্যমন্ত্রণলায় ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের কোটা আন্দোলনে আহতদের বিষয়ে একটা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। চিকিৎসার বিষয়টি অবহেলা করার সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, মতাপ্রকাশের স্বাধীনতা প্রত্যেকটি মানুষের আছে। এটা তার সাংবিধানিক অধিকার। আমার মতের সঙ্গে অন্য কেউ সহমত পোষণ করবেন, এমনটি সব সময় নাও হতে পারে। দ্বিমত প্রকাশের অধিকারও হচ্ছে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা। যদি এমন কোনো মত হয় যা সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠীর স্বার্থ ক্ষুণ্ন করার সম্ভাবনা তৈরি করে বা সামাজিক অশান্তির কারণ হতে পারে সে ধরনের মতাপ্রকাশের উপরে একটা বিধিনিষেধ রাষ্ট্রকর্তৃক আরোপ হতে পারে। কিন্তু সেটি বৃহত্তর স্বার্থে। তবে সেটি করতে হবে সুবিবেচনার মাধ্যমে।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. মিজানুর রহমান বলেন, ছাত্ররা আন্দোলন করতেই পারে। আন্দোলন কতটা যৌক্তিক-অযৌক্তিক তা বিচার-বিশ্লেষণের দায়িত্ব যাদের উপর তারা তা করবেন। কিন্তু আন্দোলন করার কারণে যদি কাউকে হেনস্থা হতে হয়, আহত হয়, চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হয় তাহলে তা খুবই দুঃখজনক। মানবাধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

তিনি বলেন, যদি কোনো একজন ব্যক্তি বা ছাত্র আহত হয় তখন তার চিকিৎসা প্রয়োজন পড়ে। সেক্ষেত্রে শুধু সরকারি হাসপাতালই নয়, ব্যক্তিমালিকানাধীন হাসপাতালগুলোও যদি তাকে চিকিৎসা সেবা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে এর চেয়ে দুঃখজনক আর কী হতে পারে। তার মানে এখানে মানুষের স্বাধীনতা সাংঘাতিকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে যাচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ