প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বেড়েছে কাঁচা পাট ও পাটজাত পণ্যের রপ্তানী আয়

মতিনুজ্জামান মিটু : বেড়েছে কাঁচা পাট ও পাটজাত পণ্যের আয়। বিগত ২০১৭-১৮ সালে পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানীতে আয় হয়েছে ১০২ কোটি ৫৫ লাখ মার্কিন ডলার। যা ২০১৬-১৭ অর্থবছরের চেয়ে শতকরা ৬.৫৬ ভাগ বেশি।

বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রজনন বিভাগের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. আল-মামুন বলেন, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে কাঁচা পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানীতে আয় হয়েছে ১০২ কোটি ৫৫ লাখ মার্কিন ডলার। এর আগের বছর অর্থাৎ ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে রপ্তানীতে আয় হয়েছিল ৯৬ কোটি ২৪ লাখ মার্কিন ডলার। প্রকৃতিক তন্তুর প্রতি সচেতনতার কারণে বিশ্ব জুড়ে পাটজাত পণ্য ব্যবহারের আগ্রহ ক্রমাগত বাড়ছে। পশ্চিমাবিশ্বসহ বিশ্বের ৬০টি দেশে বাংলাদেশের পাটজাত পণ্য রপ্তানী হচ্ছে। পাট দিয়ে তৈরি শাড়ি, লুঙ্গি, সেলোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, বাহারি ব্যাগ, খেলনা, শোপিস, ওয়ালমেট, আল্পনা, দৃশ্যাবলি, নকশিকাঁথা, পাপোশ, জুতা, স্যান্ডেল, শিকা, দড়ি, সুতলি, দরজা-জানালার পর্দার কাপড়, গহনা ও গহনার বাক্সসহ ২৮৫ ধরনের পণ্য দেশ বিদেশে বাজারজাত হচ্ছে।

দেশে উৎপাদিত পাটজাত পণ্যের প্রায় পুরোটাই বিদেশে রপ্তানী হচ্ছে। আভ্যন্তরিন বাজারেও বাড়ছে এসব পণ্যের চাহিদা। ঢাকাই মসলিন, সিল্কের শাড়ি কিংবা কাপড় যেমন নামে-ডাকে গুরত্বপূর্ণ, ঠিক পাটের তৈরি অনেক জিনিসপত্রও বর্তমানে দেশ-বিদেশে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এছাড়া পাটের তৈরি জিন্স(ডেনিম), পাটখড়ি থেকে উৎপাদিত ছাপাখানার বিশেষ কালি (চারকল), পাট ও তুলার মিশ্রণে তৈরি বিশেষ সুতা (ভেসিকল), পাটের তৈরি বিশেষ সোনালী ব্যাগ ও পাট পাতা থেকে উৎপাদিত ভেষজ পানীয় দেশি-বিদেশি মানুষের নজর কেড়েছে। স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি ইউরোপের দেশগুলোতে পাট ও পাটজাত পণ্যের রপ্তানী আরও বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশের পাট এখন পশ্চিমা বিশ্বের গাড়ি নির্মাণ, পেপার অ্যান্ড পাম্প,ইনস্যুলেশন শিল্পে, জিওটেক্সটাইল হেলথ কেয়ার, ফুটওয়্যার, উড়োজাহাজ, কম্পিউটারের বডি তৈরী, ইলেকট্রনিক্স, মেরিন ও স্পোর্টস শিল্পে ব্যবহৃত হচ্ছে। পাটের পাতা দিয়ে তৈরী অর্গানিক চা জার্মানিতে রপ্তানী হচ্ছে। পাট কাটিংস ও নিম্নমানের পাটের সঙ্গে নির্দিষ্ট অনুপাতে নারিকেলের ছোবড়ার সংমিশ্রণে তৈরি পরিবেশবান্ধব এবং ব্যবসাসাশ্রয়ী জুট জিওটেক্সটাইল, যা ভূমিক্ষয় রোধ, রাস্তা ও বেড়িবাঁধ নির্মাণ, নদীর পাড় রক্ষা ও পাহাড়ধ্বস রোধে ব্যবহৃত হচ্ছে। দেশে এখন জিওটেক্সটাইলের ৭০০ কোটি টাকার বাজার রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ