প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বারবার ডোপ টেস্টে বৈষম্যের শিকার সেরেনা উইলিয়ামস

স্পোর্টস ডেস্ক: টেনিস কোর্টে কিংবা কোর্টের বাইরে অনেকবার বর্ণবাদী বৈষম্যের শিকার হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক নাম্বার ওয়ান টেনিস তারকা সেরেনা উইলিয়ামস। এবার নতুন করে ডোপ টেস্ট করতে গিয়েও তাকে মুখোমুখি হতে হয়েছে বৈষম্যের।
আমেরিকার টেনিস খেলোয়াড়দের মধ্যে তার চেয়ে বেশিবার ডোপ টেস্টের মুখোমুখি হতে হয়নি কাউকে। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে শুধু ২০১৮ সালেই পাঁচবার সেরেনাকে দিতে হয়েছে নিজের ডোপ পরীক্ষা। নিষিদ্ধ কোন মাদক বা ওষুধ তিনি গ্রহণ করেন না, এ তথ্য প্রমাণ করতে হয়েছে বারবার।
এতো এতো বার ডোপ টেস্টের সামনে পড়ে সেরেনার মনে হচ্ছে তাকে ঘিরে বৈষম্যপূর্ণ আচরণ করছে টেনিস ফেডারেশন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে সেরেনা লিখেন, ‘সময় এখন এমন হয়েছে যে যখন ইচ্ছা ড্রাগ টেস্টে ডাকা হবে এবং শুধু সেরেনাকেই ডাকা হবে। এটা ইতোমধ্যেই প্রমাণিত যে সব খেলোয়াড়দের মধ্যে আমাকেই সবচেয়ে বেশি ডোপ টেস্ট দিতে হয়েছে। এটা কে বৈষম্য বলা যায়? আমার মনে হয় অবশ্যই।’
সেরেনার এতো ঘন ঘন ডোপ টেস্টের কারণে একটি গবেষণামূলক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ‘ডেডস্পিন’। যেখানে জানা গিয়েছে তার মতো এত বেশিবার ডোপ টেস্ট দিতে হয়নি কাউকেই। এই প্রতিবেদন পড়ে সেরেনার মনের সন্দেহ আরো পোক্ত হয়েছে।
সেরেনা বলেন, ‘আমি আগে জানতামই না যে অন্য সবার চেয়ে এতো বেশিবার আমাকে ডোপ টেস্ট দিতে হয়েছে। আমি ওই (ডেডস্পিনের) প্রতিবেদন পড়ে জানতে পেরেছি এটি কতটা বৈষম্যপূর্ণ ছিল আমার জন্য। তারা আমাকে বিশ্বের অন্য খেলোয়াড় না হোক, অন্তত আমেরিকার খেলোয়াড়দের মতো করেও দেখে না।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ