প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অশুভ শক্তির মুখে লাগাম লাগাতে হবে : মোস্তফা

শিমুল মাহমুদ: দেশবাসীকে গণতন্ত্র রক্ষার স্বার্থে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, সরকারের শুভ বুদ্ধির উদয় হলেই জাতির কল্যাণ। অন্যথায় জাতির জন্য আরো বেশী কঠিন সময় অপেক্ষা করছে। তিনি বলেন, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র রক্ষা করতে হলে জাতীয় ঐকমত্য প্রতিষ্ঠার কোন বিকল্প নাই। জাতীয় ঐকমত্যের ভিত্তিতেই অশুভ শক্তির মুখে লাগাম লাগাতে হবে।

বুধবার নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে ন্যাপ’র ৬১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় দলের পক্ষ থেকে কেক কাটা হয় এবং দলের প্রতিষ্ঠাতা স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পনের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুইয়া আরো বলেন, দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হলে কোনো অগণতান্ত্রিক ও স্বৈরাচারী শক্তি আর সরকার গঠন করতে পারবে না। তাই সমস্ত রাজনৈতিক দলকে দলীয় স্বার্থের উর্দ্ধে উঠে ঐকবদ্ধ হতে হবে।

তিনি বলেন, ন্যাপ’র সৃষ্টি হয়েছিল জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য। মওলানা ভাসানী ও ভাসানী পরবর্তী মশিউর রহমান যাদু মিয়া, শফিকুল গানি স্বপন এবং আজকের নেতৃত্ব জেবেল রহমান গানির নেতৃত্বে ন্যাপ আজও সেই সংগ্রাম অব্যাহত রেখেছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীন স্বার্বভৌম বাংলাদেশে একটি দেশপ্রেমিক সরকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম অব্যাহত রাখবে দল।

তিনি সকল গণতান্ত্রিক শক্তির প্রতি আহ্বান জানান, আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে আনি। গড়ে তুলি জাতীয় ঐকমত্য। দেশে আজ অরাজকতা বিরাজ করছে। মানুষের ভোটের অধিকার নেই। সুতরাং ভোটে অধিকার আদায়ের জন্য ঐকবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

তিনি বাংলাদেশ ন্যাপকে সমর্থনের জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

ন্যাপ ঢাকা মহানগর সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সভাপতিত্বে সভায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন গণতান্ত্রিক ঐক্যের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম, লেবার পার্টি (একাংশ) মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, ন্যাপ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, নির্বাহী সদস্য এখলাছুল হক, সাবেক ছাত্রনেতা এম. এন. শাওন সাদেকী, যুবনেতা আবদুল্লাহ আল কাউছারী প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত