প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের হুমকি সৃষ্টিকারী ইটভাটাগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে

আনিসুর রহমান তপন: পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের হুমকি সৃষ্টিকারী ইট ভাটাগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে। বুধবার সচিবালয়ে ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের প্রথম কার্যদিবসের আলোচনা শেষে এ কথা বলেন পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

এই কার্যদিবসে মাঠ প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা ডিসি ও বিভাগীয় কমিশনারদের সঙ্গে আলোচনা করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয় এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীগণ।

বনমন্ত্রী বলেন, ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ এর আলোকে পরিবেশ জনস্বাস্থ্যের হুমকি সৃষ্টিকারী ইটভাটাগুলো বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তাছাড়া পরিবেশ রক্ষা ও কৃষি জমি সুরক্ষার লক্ষ্যে শিল্প কারখানায় ইটিপি প্ল্যান্ট এর ব্যবহার অনলাইনে মিনিটরিংয়ের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

পরে খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম  জানান, খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি, ভিজিডি, ভিজিএফ ইত্যাদি কর্মসূচি যথাযথভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নজরদারি বাড়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে এবং ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে জিরো-হাঙ্গার পলিসি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়াও দেশের সকল খাদ্যগুদাম বন্যা ও অন্যান্য ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষাকল্পে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী  এ কে এম শাহজাহান কামা‌ল বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর নির্মান প্রকল্পের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা এবং বাগেরহাটে খান জাহান আলী বিমান বন্দর নিমার্ন প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের সম্প্রসারণ, কক্সবাজার বিমান বন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে উন্নীতকরণ, সিলেট ওসমানী বিমান বন্দর, বরিশাল বিমান বন্দর ও সৈয়দপুর বিমান বন্দর উন্নয়নকল্পে মাষ্টারপ্ল্যান প্রস্তুত করা হয়েছে।

চট্টগ্রামস্থ পারকি, কুমিল্লার লালমাই, বরিশালের দূর্গাসাগর, নোয়াখালীর নিঝুম দ্বীপ এবং ফরিদপুর ও সিরাজগঞ্জ জেলায় পর্যটন সুবিধাদি প্রবর্তনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ