প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাঁদলেন শামীম ওসমান, কর্মীদেরও কাঁদালেন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খুব কাছ থেকে দেখা ঘটনার বর্ণনা দিচ্ছিলেন শামীম ওসমান। হঠাৎ করেই আবেগাপ্লুত হয়ে আওয়ামী লীগের এই নেতার চোখ বেয়ে পানি ঝরতে শুরু করল।  এ সময় আবেগঘন বক্তৃতায় পিনপতন নীরবতার মাঝেই কেঁদে ফেলেন উপস্থিত অনেকেই।
মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার কাশীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৭, ৮, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শামীম ওসমান প্রধানমন্ত্রীর জীবনী নিয়ে বক্তব্য দেওয়ার সময় এমন ঘটনা ঘটে।
কাশীপুর হাজী উজির আলী উচ্চবিদ্যালয়ে এটি অনুষ্ঠিত হয়। শামীম ওসমান তার বক্তব্যে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খুব কাছ থেকে দেখার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। একদিন তিনি কয়েকজন বৃদ্ধ-বৃদ্ধাকে জড়িয়ে ধরেছিলেন। এরপর হঠাৎই তার চোখে পানি দেখে আমি জিজ্ঞাসা করেছিলাম, আপা কেন কাঁদছেন। প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছিলেন, শামীম, কোনো বৃদ্ধ লোক যখন আমার মাথায় হাত বোলায়, মনে হয় যেন আমার বাবা আমাকে দোয়া করছেন। কোনো বৃদ্ধাকে যখন বুকে জড়িয়ে ধরি, মনে হয় আমার মা আমাকে পরম স্নেহে জড়িয়ে ধরেছেন। ছোট শিশুরা যখন আমাকে দেখে হাসিনা হাসিনা বলে চিৎকার করে, তখন মনে হয় আমার রাসেল আমাকে ডাকছে। তাই জীবনের শেষ দিনটিও আমি এ দেশের মানুষের জন্য বিলিয়ে দিতে চাই।’ এসব বলার সময় শামীম ওসমানের চোখ বেয়ে পানি ঝরছিল আর তার আবেগঘন বক্তব্যে উপস্থিত অনেকেই তখন চোখ মুছছিলেন।
শামীম ওসমান নেতাকর্মী ও আগত সাধারণ মানুষের উদ্দেশে বলেন, আমার বাবা-মা কেউ নেই। মা বেঁচে থাকতে তার কাছে জিজ্ঞাসা করেই রাজনীতি করেছি, সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখন আপনারাই আমার অভিভাবক, আপনারা তৃণমূলের কর্মীরাই আমার সিদ্ধান্তের অধিকার রাখেন। কারণ জননেত্রী শেখ হাসিনাও তৃণমূলকে ভালোবাসেন। নেতারা বেইমানি করতে পারে কিন্তু কর্মীরা কখনওই বেইমানি করেনি, করবে না। আমিও শেখ হাসিনার একজন কর্মী হয়েই থাকতে চাই। এই দেশকে রক্ষার জন্য শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ