Skip to main content

সাকিব টেস্ট খেলতে চান না শুনে মর্মাহত আকরাম খান

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশের ক্রিকেটপাড়ার গরম খবর- দলের কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার টেস্ট খেলতে চান না। পাঁচ দিনের ম্যাচের প্রতি কাদের এতো অনীহা তা এখন দিনের আলোর মতোই পরিষ্কার। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন স্পষ্ট করেই বলেছেন সাকিব, মুস্তাফিজসহ আরও কয়েকজন ক্রিকেটারের টেস্ট খেলার ব্যাপারে আগ্রহ নেই। এ কথা জেনে মর্মাহত বাংলাদেশের অভিষেক টেস্ট একাদশের সদস্য ও বর্তমান বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান। শনিবার বিসিবি কার্যালয়ে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন আকরাম খান। সেখানে তিনি বলেন, ‘শুনে তো আমার খুবই খারাপ লাগছে। কিন্তু এরকম হওয়া উচিত না।’ আকরাম মনে করেন তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশ দলের অপরিহার্য ক্রিকেটার সাকিব। যে কারণে সব ধরণের ক্রিকেটেই অলরাউন্ডারের দেশের হয়ে খেলা উচিত। সাকিবের সম্পর্কে বলেন, ‘সে (সাকিব) আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। আমাদের ক্রিকেট যে অবস্থায় আছে তাতে আমি মনে করি তিন ফরম্যাটেই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সাকিব। সেরা টিম করতে যে যে খেলোয়াড়কে দরকার তাদেরকে আমরা খেলাবো।’ টেস্ট খেলতে সাকিব আল হাসানের অনীহার ব্যাপারটি টের পাওয়া গিয়েছিল গত বছরের সেপ্টেম্বরে। সাউথ আফ্রিকা সফরে টেস্ট সিরিজ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেন এই অলরাউন্ডার। পরে মুশফিকুর রহিমকে সরিয়ে সাকিবকে দেয়া হয় সাদা পোশাকে অধিনায়কের দায়িত্ব। প্রথম সিরিজেই তার দল হতাশায় ডোবায়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় বাংলাদেশ। তবে ব্যাক্তিগত ফর্ম তার খারাপ ছিল না। টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের কেন এই ভঙ্গুর অবস্থা, জানতে চাইলে গতকাল শুক্রবার বিসিবি সভাপতি নানা বিষয়ের সঙ্গে কারণ তুলে ধরেন লাল বলে খেলতে ক্রিকেটারদের অনীহার ব্যাপারটি। সেখানেই একপর্যায়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে বেশ কিছু সিনিয়র ক্রিকেটার আছে, তারা টেস্ট খেলতে চাচ্ছে না। চাচ্ছে না বলতে, যেমন সাকিব টেস্ট খেলতে চায় না। মুস্তাফিজও টেস্ট খেলতে চায় না। বলে না যে খেলব না, কিন্তু চায় এড়িয়ে যেতে। তাদের কাছে টেস্ট অনেক কঠিন।’ এভাবেই সাকিব-মুস্তাফিজের বিষয়টি গণমাধ্যমের সামনে আসে।