Skip to main content

থাই ফুটবল দলকে নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রে নিয়ন্ত্রণ রাখতে চায় দেশটির সরকার

লিহান লিমা: থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহায় আটকা পড়া ফুটবল দলের ১২ সদস্য ও তাদের কোচকে উদ্ধারকার্য নিয়ে ছবি বানাতে তোড়জোড় শুরু করেছেন পরিচালকরা। তবে এই অসাধারণ উদ্ধারকার্য ও বালকদের কিভাবে চলচ্চিত্রে চিত্রায়ন করা হবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন থাই সরকার। দেশটির সামরিক শাসিত সরকার জানায়, তারা আশঙ্কা করছে গণমাধ্যম এবং নির্মাতারা এই উদ্ধারকার্য চিত্রায়ন করে নিজেদের স্বার্থ হাসিলের সুযোগ দিতে পারেন। দেশটির সংস্কৃতিমন্ত্রী ভিরা রোজপোচাহনারাত বলেন, ‘সামনের সপ্তাহে তিনি মন্ত্রীপরিষদের বৈঠকে ছবির পরিচালকদের সঙ্গে সমঝোতার জন্য একটি বিশেষ কমিটির প্রস্তাব দিবেন।’ ভিরা বলেন, পাঁচটি বিদেশি চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রতিষ্ঠান উদ্ধারকার্য নিয়ে ছবি ও ডকুমেন্টারি নির্মাণ নিয়ে সরকারের সঙ্গে কথা বলেছে। থাই চলচ্চিত্র প্রযোজকরাও আগ্রহ দেখিয়েছেন। থাইল্যান্ড চলচ্চিত্র অফিস বিষয়টি দেখছে। কিন্তুগল্পের বিষয়বস্তু, লাইসেন্স, বালক এবং তাদের পরিবারের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার ব্যাপারে নির্মাতাদের কোন ছাড় দেয়া হবে না। থাইল্যান্ডের ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী উইসানু রেনাঙ্গাম বলেন,‘নিষেধাজ্ঞার মুখেও বেশ কয়টি বিদেশি গণমাধ্যম বালকদের সাক্ষাতকার নিয়েছে। আমরা আশা করি, তারা শিশুদের মানসিক অবস্থা এবং ব্যক্তিগত সুরক্ষার প্রতি সম্মান দেখাবেন। শিশু সুরক্ষা আইন লঙ্ঘন করলে কঠোর শাস্তি পেতে হবে। অন্তত ১ মাস ফুটবল দলকে কোন রকম বিরক্ত করা যাবে না।’ ভিরা বলেন, যদি এই উদ্ধারকার্যে কোন অতি-নাটকীয়তা কিংবা কোন বাড়তি বিষয় সংযুক্ত করা হয় তাহলে ঘটনাটি তার প্রকৃত সত্য হারাবে। ইতোমধ্যেই এই উদ্ধারকার্য নিয়ে অনেক ম্যুরাল ও ভাস্কর্য নির্মাণ কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। যার বেশিরভাগের মধ্যেই তুলে ধরা হয়েছে উদ্ধার কাজে অংশ নিয়ে নিহত হওয়া থাই নেভি সিলের সাবেক ডুবুরি সামান কুনানকে। এবিসি নিউজ।