প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাণিজ্য মেলার নতুন গন্তব্যস্থল ঢাকার পূর্বাচল

সাজিয়া আক্তার : পরিকল্পিত মাঠ পর্যাপ্ত পার্কিং সুবিধা কিংবা দেশ বিদেশে ক্রেতা তাদের আবাসন সুবিধা রেখে তৈরি হচ্ছে বাণিজ্য মেলার নতুন গন্তব্য। যেখানে থাকবে ৮’শ স্টল ও দেড় হাজার গাড়ি পার্কিংয়ের সুবিধা। রাজধানী থেকে কিছুটা দূরে হলেও পূর্বাচলের মনোরম পরিবেশে ঘটবে মানুষের মিলন মেলা, এমন আশাবাদ সরকারের। প্রকল্পের ব্যয় ও সময় ২০২০ এর জুন পর্যন্ত বাড়ানো হলেও নির্মাতারা জানালেন, এর আগেই সেখানে মেলা করা সম্ভব হবে।

বর্ধিত ঢাকার নতুন গন্তব্য পূর্বাচল, এখানেই হচ্ছে বাণিজ্য মেলার নতুন গন্তব্য। ৩’শ ফিট রাস্তা ধরে কাঞ্চন ব্রিজ ধরে ১ কিলোমিটার দূরে নির্মাণ হচ্ছে এই প্রকল্প। যার নাম বাংলাদেশ চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার। প্রকল্পে মোট ব্যয় হচ্ছে ১৩’শ ৩ কোটি টাকা আর কাজ শেষ হওয়ার কথা ২০২০ এর জুন মাসে।

পুর্বাচলে বাণিজ্য মেলার জন্য নির্মিত নতুন এই ফটকের ভিতরেই মিলবে ৮’শ বুথ, যেখানে দেশি-বিদেশি কোম্পানি গুলো বসবে পণ্যের পসরা সাজিয়ে। এর ফলে রাজধানীর বাণিজ্য মেলাকে কেন্দ্র করে রাজধানীবাসীকে যে তীব্র যানজট পোহাতে হয় তার থেকে স্থায়ী মুক্তি মিলবে আশা সংশ্লিষ্টদের।

এতে ৬’শ ২৫ কোটি টাকা অর্থায়ন করেছে চীন। বাস্তবায়ও হচ্ছে তাদের হাত ধরে। এখানেই কাজ করছে কয়েকশ বাংলাদেশি শ্রমিক।

স্থানীয়দের আশা এটি বাস্তবায়ন হলে একদিকে হবে কর্মসংস্থান অন্য দিকে পাল্টে যাবে পোরো এলাকার চিত্র।

বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম বলেন, বাণিজ্য মেলার পাশাপাশি সারা বছরেই নানা অনুষ্ঠান আয়োজন করবো আমরা। এখানে যারা আসবে তাদের যেনো কোনো সমস্যা না হয় তার জন্য আমরা আবাসিক হোটেলও করবো।

প্রকল্পের মুল লক্ষ পুরনে রাজধানীর মুল কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থার তাগিদ বিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা।

সূত্র : নিউজ ২৪ টেলিভিশন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ