প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজনৈতিক সংকট উত্তরণে জাতীয় সংলাপের উদ্যোগ নিতে প্রধানমন্ত্রীকে আহবান

রিয়াজ হোসেন : রাজনৈতিক সংকট উত্তরণ ও দেশবাসীর উৎকন্ঠা দূর করতে প্রধানমন্ত্রীকে জাতীয় সংল্পাপের উদ্যোগ নিতে আহবান জানিয়েছেন কাদের সিদ্দিকী। এসময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘ সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য জাতীয় ঐক্যের প্রয়াস নিন । মানুষ যাতে তার স্বাধীন ভাবে ভোট দিতে পারে তার উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করুন।’

শুক্রবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, গণতন্ত্র পক্রিয়ায় দেশ চলতে হলে দল ও সরকাওে মধ্যে ভারসম্য থাকা দরকার । কিন্তু আমাদের দেশে তার বালাই নেই । আমাদের দেশে দল ও সরকার প্রধান একই ব্যাক্তি হওয়ায় রাজনীতির গুরুত্ব নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

এসময় তিনি বলেন, অনেক দিন ধরেই জাতীয় ঐক্যের চেষ্টা করছি। তবে তা সরকার এবং বিএনপির সমদূরত্বে থেকে কাঙ্ক্ষিত জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করা। আমরা বি চৌধুরী আর ড. কামাল হোসেনের কার্যকর নেতৃত্ব চাই। এটা ফ্রন্ট হোক বা জোট হোক, তার প্রধান হবে বি চৌধুরী। এই নির্বাচনে যদি সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে সরকার গঠন করলে সরকার প্রধান হবেন ড. কামাল হোসেন।’

‘খালেদা জিয়ার ব্রিটিশ আইনজীবী লর্ড কার্লাইলের ভারতে আসার বিষয়টি সমালোচনা করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন কেন ভারতে এসে করতে হবে।’

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যর সূত্র ধরে কাদের সিদ্দিকী বলেন বিএনপি ক্ষমতায় এলে যদি রক্তের গঙ্গা বয়, তার প্রতিকার কী এটা আমাদের ভেবে দেখতে হবে, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, ‘আমার তো মনে হয় না যে এটার প্রতিকার আওয়ামী লীগ বা বিএনপির হাতে আছে।’

জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের অবস্থান নিয়ে কাদের সিদ্দিকী বলেন পৃথীবির ইতিহাসে কোথাও নজির খুঁজে পাওয়া যাবে না একটা দলের অর্ধেক সরকারি আর অর্ধেক বিরোধী দল। এটা জগণের সাথে তামাশার শামিল।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সহ সভাপতি আমিনুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকি, কোষাধ্যক্ষ আব্দুল্লাহ বীরপ্রতিক প্রমূখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ