প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিশু রাইফার মৃত্যু
এজাহার মামলা হিসেবে নেয়নি পুলিশ, অনশনের হুমকি বাবার

সমকাল প্রতিবেদন: একদিন পার হলেও চিকিৎসকের অবহেলায় শিশু রাফিদা খান রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা এজাহার মামলা হিসেবে গ্রহণ করেনি চট্টগ্রাম নগরের চকবাজার থানা। গত বুধবার ভুল চিকিৎসা ও চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ এনে চার চিকিৎসকের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দায়ের করেছিলেন রাইফার বাবা সাংবাদিক রুবেল খান। এদিকে মামলা গ্রহণ করা না হলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) সদর দপ্তরের সামনে আমরণ অনশনের যাবেন বলে জানিয়েছেন রুবেল খান।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান সমকালকে বলেন, ইতিমধ্যে মামলার এজাহার গ্রহণ করা হয়েছে। প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হবে। বিষয়টি নেতিবাচকভাবে নেওয়ার কোনো কারণ নেই।

বুধবার চকবাজার থানায় দায়ের করা রাইফার বাবার এজাহারে মামলার আসামি করা হয়েছে ডা. বিধান রায় চৌধুরী, ডা. দেবাশীষ সেনগুপ্ত, ডা. শুভ্র দেব ও বেসরকারি ম্যাক্স হাসাপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. লিয়াকত আলীকে। এসব চিকিৎসকের বিরুদ্ধে চিকিৎসায় অবহেলার প্রমাণ পেয়েছিল চট্টগ্রাম সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটি।

সাংবাদিক রুবেল খান বলেন, ইতোমধ্যে সিভিল সার্জন ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের

গঠিত তদন্তে চিকিৎসায় অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার প্রমাণ পেয়েছে। সিভিল সার্জনের প্রতিবেদনে অবহেলায় দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। সে অনুযায়ী চকবাজার থানায় মামলা দায়ের করেছিলাম। কিন্তু পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করছে। পুলিশ আমার দেওয়া এজাহার মামলা হিসেবে গণ্য না করলে আমি পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ের সামনে আমরণ অনশনে যাব।

গত ২৯ জুন রাতে চট্টগ্রামের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় আড়াই বছর বয়সী শিশু রাইফা। ভুল চিকিৎসা ও চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ আনেন তার বাবা সমকালের স্টাফ রিপোর্টার রুবেল খান। এরপর থেকে দোষী চিকিৎসকদের শাস্তি ও অভিযুক্ত ম্যাক্স হাসপাতাল বন্ধের দাবিতে লাগাতার আন্দোলন করে আসছেন চট্টগ্রামের সংবাদকর্মীরা। এ আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে সারাদেশে। এমনকি বিদেশের মাটিতেও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন, সভা-সমাবেশ করেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত