প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আগস্ট ও ঈদকে কেন্দ্র করে জঙ্গি হামলার সতর্কতা জারি

ডেস্ক রিপোর্ট : আসন্ন ঈদুল আজহা ও আগস্ট মাসকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ সারাদেশে জঙ্গি হামলার সতর্কতা জারি করা হয়েছে। গোয়েন্দাদের পাওয়া তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এই সতর্কতা জারি করা হয়। এতে বলা হয়, ঈদের সময় রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের বিভিন্ন এলাকায় জঙ্গিরা টার্গেট কিলিং বা গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় হামলা চালাতে পারে।

জঙ্গিদের নিজস্ব যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এসব বিষয় নিয়ে আলোচনাও চলছে। তবে পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, এটি একটি রুটিন ওয়ার্ক। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সবসময় আগাম সতর্কতা জারি করা হয়। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। নতুন করে হামলা করার মতো শক্তি ও সামর্থ্য এখন জঙ্গিদের নেই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি (ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড স্পেশ্যাল অ্যাফেয়ার্স) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, `সরাসরি জঙ্গি হামলার কোনও হুমকির খবর আপাতত আমাদের কাছে নাই। তবে আমরা সবসময় যেকোনও জঙ্গি হামলা মোকাবেলায় সতর্ক থাকি। ঈদকে সামনে রেখে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক হবে। সেখানে এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা ও সিদ্ধান্ত হবে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে পুলিশ সদর দফতর থেকে আগামী আগস্ট মাস ও কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে জঙ্গিরা হামলা করতে পারে এমন আশঙ্কার কথা উল্লেখ করে একটি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটসহ (সিটিটিসি)পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে এই সতর্কতা প্রতিবেদন পাঠানো হয়। এতে বলা হয়, জঙ্গিরা তাদের নিজস্ব যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে নিজেদের অস্তিত্ব প্রমাণ করতে ঈদকে কেন্দ্র করে আবারও হামলা চালাতে পারে বলে আলোচনা করছে। এছাড়া ঈদ হলো আগস্ট মাসে। বিভিন্ন সময়ে জঙ্গিরা আগস্ট মাসকে কেন্দ্র করেই হামলা চালিয়েছে। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা গ্রেনেড নিক্ষেপ করে ২৪ জনকে হত্যা ও ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশের ৬৩ জেলায় একযোগে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির শক্তি প্রদর্শন করে। এছাড়া সর্বশেষ গত বছরও ১৫ আগস্টের শোক দিবসকে কেন্দ্র করে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে হামলার পরিকল্পনা করেছিল জঙ্গিরা। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিষয়টি আগে জানতে পেরে পান্থপথের হোটেল ওলিও ইন্টারন্যাশনালে অভিযান চালায়। এসময় এক জঙ্গি আত্মঘাতি হয়ে মারা যায়।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জঙ্গিরা শোকের মাস হিসেবে আগস্ট মাসকে আরও বেশি শোকাহত করার জন্য পরিকল্পনা নিতে পারে। এবার আগস্ট মাসের ২১ অথবা ২২ তারিখে ঈদুল আজহা পালিত হওয়ার কথা রয়েছে। এজন্য ঈদকে কেন্দ্র করে পুরো আগস্ট মাসই জঙ্গি হামলার সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে।

ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘দেশে সক্রিয় যে তিনটি জঙ্গি সংগঠন রয়েছে তার মধ্যে নব্য জেএমবি এখন একেবারেই কোনঠাসা হয়ে পড়েছে। তাদের নতুন করে হামলা করার শক্তি ও সামর্থ্য প্রায় নেই বললেই চলে। তবে পুরোনো জেএমবি নতুন করে আবার সংগঠিত হওয়ার প্রাণপণ চেষ্টা করছে। ভারতে আত্মগোপনে থেকে প্রিজন ভ্যান থেকে ছিনিয়ে নেওয়া দণ্ডিত জঙ্গি নেতা সালাউদ্দিন সালেহীন ও মিজানুর রহমান ওরফে বোমা মিজান পুরোনো জেএমবির দুটি অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তারা অর্থ সংগ্রহের জন্য ইতোমধ্যে রাজধানী ঢাকাসহ উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি ও ছিনতাই করছে। এছাড়া গত মাসের ১১ জুন পুরোনো জেএমবির সদস্যরা মুন্সীগঞ্জের সিরাজাদিখানে শাজাহান বাচ্চু নামে মুক্তমণা একজন লেখক ও প্রকাশককে গুলি করে হত্যা করে। এমনকি এই হত্যাকাণ্ডের পক্ষে নানারকম যুক্তি দেখিয়ে পুরোনো জেএমবির পক্ষ থেকে তাদের নিজস্ব প্রপাগান্ডা চ্যানেলে এর দায়ও স্বীকার করা হয়েছে।’

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে দীর্ঘ দিন ধরে কাজ করে আসা সংশ্লিষ্ট ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘তারা পুরোনো জেএমবির সংগঠিত হওয়া নিয়ে কিছুটা বিচলিত রয়েছেন। অপরদিকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আল-কায়েদার অনুসারী আনসার আল ইসলামের একজন শীর্ষ নেতা সেনাবাহিনী থেকে বহিস্কৃত মেজর জিয়াউল হককে ধরতে না পারায় তাকে নিয়েও শঙ্কা রয়েছে। দীর্ঘ দিন টার্গেট কিলিংয়ে বিরত থাকলেও জিয়া নতুন করে আবার টার্গেট কিলিং শুরু করতে পারে। যদিও সম্প্রতি জিয়ার সহযোগী ও আনসার আল ইসলামের মধ্যমসারির কয়েকজন নেতাকে গ্রেফতার করার পর জিজ্ঞাসাবাদে তারা নতুন করে হামলার চাইতে আনসার আল ইসলামকে সংগঠিত করার বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন ।’

সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশে বর্তমানে জঙ্গিবাদ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনা হলেও একেবারে নির্মূল করা সম্ভব হয়নি। এ কারণে আইনশৃঙ্খলা-বাহিনী সবসময়ই জঙ্গি হামলা হতে পারে এমন আশঙ্কা নিয়ে প্রতিরোধে কাজ করে আসছে। তবে বিষয়টি নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত