প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এক সপ্তাহের মধ্যেই বন্ধ হতে যাচ্ছে বড়পুকুরিয়া বিদ্যুৎকেন্দ্র

ডেস্ক রিপোর্ট : এক সপ্তাহের মধ্যে বন্ধ হতে যাচ্ছে বড়পুকুরিয়া কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র। বড়পুকুরিয়া খনির শিফট পরিবর্তনের কারণে কয়লার মজুদ না থাকায় কেন্দ্রটি বন্ধ করতে হবে। এতে দেশের উত্তারাঞ্চলে বিদ্যুৎ ঘাটতির আশঙ্কা করছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। সংশ্লিষ্ট সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) জুবায়ের আলী বলেন, ‘কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্রকে চাহিদামতো কয়লা দিতে পারছি না। ফলে কেন্দ্রটি প্রতিদিন তিন হাজার টন কয়লা চাইলেও আমরা তা দিতে পারছি না।’ তিনি বলেন, ‘একটি স্তরের কয়লা শেষ করে অন্যস্তরের কয়লা তোলা হয়। এ সময় খনির ভেতরে যন্ত্রাংশের স্থান পরিবর্তন করতে হয়। এই কাজ গত ২৯ জুন থেকে শুরু হয়েছে। কাজ শেষ করতে করতে আগস্ট মাস পুরোটা লাগতে পারে।’

প্রতিবছর একবার শিফট পরিবর্তন করে কয়লাখনি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু শিফট পরিবর্তনের আগে বিদ্যুৎ কেন্দ্রর জন্য পর্যাপ্ত মজুদ রাখা হয়।এবারও পিডিবিকে একলাখ টনের বেশি মজুদ রয়েছে বলে খনি কর্তৃপক্ষ জানায়। কিন্তু পিডিবির সদস্য (উৎপাদন) বড়পুকুরিয়া খনি পরিদর্শন করে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকায় ৬ হাজার টন মজুদ পায়।এছাড়া খনি এলাকায় আরও আট হাজার টন কয়লার মজুদ রয়েছে। সব মিলিয়ে যে কয়লার মজুদ রয়েছে, তাতে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি আংশিক চালিয়ে রাখলেও একসপ্তাহের বেশি চলার কথা নয় বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

পিডিবি জানায়, কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্রটির তিনটি ইউনিট একসঙ্গে চালানো হলে প্রতিদিন পাঁচ হাজার মেট্রিক টন কয়লার প্রয়োজন। এখন একটি ইউনিট সংস্কারের জন্য বন্ধ থাকায় প্রতিদিন চার হাজার মেট্রিক টন কয়লার প্রয়োজন হচ্ছে। কিন্তু সব মিলিয়ে বড়পুকুরিয়ায় যে কয়লার মজুদ রয়েছে, তাতে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি কম লোডে চালানো হলেও একসপ্তাহের বেশি চলবে না।
পিডিবি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ বলেন, ‘কয়লা চালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র জ্বালানি সংকটে পড়তে যাচ্ছে। তবে বিদ্যুতের যেন কোনও সমস্যা না হয়, সেজন্য অন্য কেন্দ্র চালিয়ে সংকট সমাধানের চেষ্টা করা হবে।’

পিডিবির একজন কর্মকর্তা জানান, ‘উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোয় বগুড়া থেকে কিছু বিদ্যুৎ সরবরাহ করা সম্ভব। তবে তা দিয়ে পুরো উত্তরাঞ্চলের চাহিদা মেটানো সম্ভব নয়।’ সূত্র : বাংলা ট্রি্বিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত