প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ধামরাইয়ে তালাকপ্রাপ্ত নারীকে ধর্ষণ অতপর ৪ মাসের অন্তসত্তা

রাসেল হোসেন,ধামরাই : ঢাকার ধামরাইয়ে উপজেলার নান্নার ইউনিয়নে তালাকপ্রাপ্ত এক নারীকে বিয়ের প্রলোভনে একাদিক বার ধর্ষণ অতপর ৪ মাসের অন্তসত্তা করার অভিযোগ উঠেছে একই ইউনিয়নের একই এলাকার বখাটে মান্নানের বিরেুদ্ধে।ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পরার পর থেকে বখাটে মান্নান পলাতক রয়েছে।বখাটে মান্নান নান্নার গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে।
বুধবার (১৮ জুলাই) দুপুরে সরেজমিনে ঘটনা স্থল মান্নানের বাড়িতে গেলে মান্নানের পরিবার সাংবাদিকদের দেখে ঘরে তালা লাগিয়ে বাড়ি থেকে চলে যায়।

এসময় এলাকাবাসী জানান, মান্নান এলাকার নানা অপকর্মের সাথে জরিত । মান্নান তালাক আলা এক গরীব মহিলাকে তার দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে বিয়ের কথা বলে একাদিক বার ধর্ষণ করেছে তার ফলে গরীব মহিলাটি ৪ মাসের অন্তসত্তা হয়ে পরেছে ।এখন মান্নান তাকে বিয়ে করবে না বলে বাড়ি থেকে পালিয়ে গাঁ ঢাকা দিয়ে রয়েছে ।আমরা এলাকাবাসী প্রশাসনের নিকট মান্নানের উপযুক্ত বিচার চাই। মান্নানকে এমন শাস্তি দেওয়া হক যাতে করে আর কোন মান্নান এরকম জগন্ন কাজ না করে।

এ ব্যাপরে নান্নার ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড মেম্বার মর্তুজ আলী ঘটনার সত্যতা শিকার করে জানান, তালাকপ্রাপ্ত নারী ধর্ষণের ঘটনাটি আমার ওয়ার্ডে ঘটেছে। আমার কাছে মেয়ের লোকজন ও এলাকাবাসী এসেছিল ঘটনাটি সমাধানের ব্যাপারে । আমি ঘটনাটি শুনার পর মান্নানকে ও তার পরিবারকে ভুক্তভোগী নারীটিকে বিয়ে করার কথা বলেছিলাম কিন্ত তারা আমার কথা শুনেনি। এখন এটা আমার কাছে বা আমার পর্যায় নেই। এখন এলাকাবাসীর কাছে শুনতেছি মান্নান নাকি গাঁ ঢাকা দিয়েছে।এখন আবার শুনছি নারীটি নাকি আইনের আশ্রয় নিবে।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ডিউটি অফিসার সহ-উপ-পরিদর্শক এ এস আই লিটন জানান, আজ নান্নার থেকে এই ধর্ষণের ঘটনায় কেই কোন অভিযোগ দায়ের করেনি ।তবে এরকম কোন অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।