প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফারানবারার আকাশে আকাশবীণা

আসিফুজ্জামান পৃথিল: এবছরের সর্ববৃহৎ উড়োজাহাজ প্রদর্শনী ফারানবারা এয়ার শোতে প্রদর্শিত হয়েছে বাংলাদেশ বিমানের জন্য নির্মিত বোয়িং এর একটি ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার এয়ারক্রাফট। বাংলাদেশকে ডেলিভারি দেবার আগে বিমানের অনুমতি নিয়ে উড়োজাহাজটি প্রদর্শন করেছে বোয়িং। বিমান এই নির্দিষ্ট উড়োজাহাজটির নাম রেখেছে ‘আকাশবীণা’।

বোয়িং ও বিমান কর্মকর্তারা বলছেন, আকাশবীণা এখন বাংলাদেশে আসার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। সব ঠিক থাকলে আগামী ২০ আগস্ট উড়োজাহাজটি ঢাকার মাটি স্পর্শ করবে। তারপর আনুষ্ঠানিকভাবে আকাশবীণাকে যুক্ত করে নেওয়া হবে বিমানের বহরে। তার আগে ফার্নবোরো এয়ারশোতে বোয়িংয়ের ডিসপ্লের অংশ হিসেবে আকাশবীণার প্রদর্শনীর ফলে আগাম প্রচারের সুযোগ হওয়ায় বিমান কর্মকর্তারা দারুণ খুশি।

মঙ্গলবার হ্যাম্পশায়ারের ফারানবারা বিমানবন্দরের রানওয়ে থেকে আকাশে ওড়ে আকাশবীণা। ইউটিউবে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে দেখা যায় বিমানটি খুব নিচু দিয়ে আকাশে উড়ে দর্শকদের মাথার উপর দিয়ে চক্কর দিতে থাকে। সেসময় নানান অ্যারোবেটিক কসরৎ প্রদর্শন করে বিমানটি। এরপর নিচে নেমে আসে।

ফারানবরোর দ্বিবার্ষিক এই এয়ারশো এভিয়েশন খাতের ক্রেতা ও বিক্রেতাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বোয়িং, এয়ারবাস, সাব, মিৎসুবিসিসহ বিভিন্ন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তাদের তৈরি উড়োজাহাজ, হেলিকপ্টার সহ বিভিন্ন বেসামরিক ও সামরিক আকাশযান এখানে প্রদর্শন করছে। এয়ারশোর দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার বিভিন্ন কোম্পানি মোট ৫৩০টি এয়ারক্রাফট বিক্রির অর্ডার পেয়েছে, যার মোট দাম ৯৫.৫ বিলিয়ন ডালার।

নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ক্রেতা, বিনিয়োগকারী এবং বিমান পরিবহন সংস্থার কর্মকর্তারাও অংশ নেন এই প্রদর্শনীতে। এয়ারশোর প্রথম পাঁচ দিন- অর্থাৎ ১৬ থেকে ২২ জুলাই বরাদ্দ কেবল ব্যবসার জন্য। শেষ দুই দিন থাকবে জনসাধারণের জন্য উম্মুক্ত। ফারানবরো এয়ার শোতে প্রদর্শনের পর আকাশবীণা ফিরে যাবে যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে বোয়িং কারখানায়। অগাস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে বিমান বাংলাদেশের একটি অগ্রবর্তী দল সেখানে যাবে উড়োজাহাজটি বুঝে নেওয়ার জন্য। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের কাছ থেকে চারটি ড্রিমলাইনারসহ মোট ১০টি উড়োজাহাজ কেনার জন্য ২০০৮ সালে চুক্তি করে বাংলাদেশ বিমান। তার মধ্যে চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর এবং দুটি ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ ইতোমধ্যে বিমানকে সরবরাহ করেছে বোয়িং। প্রথম ড্রিমলাইনারটি অগাস্টে বিমান বহরে যুক্ত হওয়ার পর দ্বিতীয়টি আসবে নভেম্বরে। এরপর আগামী বছরের সেপ্টেম্বরে আরও দুটি ড্রিমলাইনার বাংলাদেশে পাঠাবে বোয়িং। লিজসহ বিমানের বহরে এখন ১০টি বিমান রয়েছে। এর মধ্যে ৮টি বোয়িং এর। বাকি দুটি কানাডার বোম্বাডিয়ার। ওয়েবসাইট

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত