প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ত্রিশ লক্ষ শহিদের প্রতি সম্মান জানাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই

ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী: আমি ব্যক্তিগতভাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে সবার উপরে অবস্থান দিয়েছি শুধু তার কর্মের জন্যই। শুনতে পাচ্ছি উনি আজ শহিদদের সম্মানার্থে ৩০ লক্ষ গাছ রোপনের কর্মসুচি উদ্বোধন করবেন। তিনি আহবান জানিয়েছেন, ৩০ লক্ষ মানুষ জীবন দিয়ে একটি স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন আমাদেরকে। আজকে তারা আমাদের মাঝে নেই। কিন্তু প্রতি দমে দমে তাদের স্মরণ করা আমাদের একান্ত প্রয়োজন। ৩০ লক্ষ গাছ রোপনের মধ্য দিয়ে আমরা সেই মানুষগুলোকে পুণরায় স্মরণ করতে পারি। তাদেরকে পূণরায় স্মরণ করা ৩০ লক্ষ মানুষের স্বার্থে নয়। তার কারণ, আমরা তাদের ফিরিয়ে আনতে পারবো না। তাদেরকে স্মরণ না করলে উনারা উপলব্দিও করতে পারবেন না, তাদেরকে আমরা স্মরণ করছি না। আমাদের প্রয়োজনেই তাদেরকে স্মরণ করতে হবে। কারণ, তাদের অস্বিত্বই আমাদের মধ্যে বিরাজমান। এবং সেই অস্তিত্ব নিয়ে আমরা বেঁচে আছি। ব্যক্তিগত জীবনেও আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা। অনেকে বলছেন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, আমি বলি মুক্তিযোদ্ধা কখনও ছিলেন হয় না। যতদিন জীবিত ততদিন মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযোদ্ধা থেকে কেউ রাজাকার হতে পারে। কিন্তু রাজাকার রাজাকাই থেকে যায়। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছি। এর কারণ তার মনের মধ্যে সবসমই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাটা বিরাজমান। এবং সেই চেতনা বিরাজমান বলেই তিনি ৩০ লক্ষ শহিদকে আজ স্মরণ করছেন। এই ৩০ লক্ষ শহিদদের নিয়েও অনেকে বিতর্ক করেন। আমাদের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া এই প্রসঙ্গে বক্তব্য দিয়েছেন। তেমনিভাবে বক্তব্য দিয়েছেন ভারতীয় কতিপয় লেখক। তাদের কথা ৩০ লক্ষ শহিদের কথা চিন্তাও করতে পারে না। আপনাকে বুঝতে হবে, বঙ্গবন্ধু কোন জাতের মানুষ ছিলেন। তিনি কোনো বোকা লোক ছিলেন না। তিনি জেনে বুঝেই ত্রিশ লক্ষ বলেছেন। আমি বলবো এই সংখ্যা কমপক্ষে ত্রিশ লক্ষ। আমি আরো বলবো, সম্প্রতি প্রফেসর নূরুল ইসলামের ২৫০ পৃষ্ঠার একটি বই প্রকাশিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কেই লিখা। অনেক বলেন প্রতিকি অর্থে ৩০ লক্ষ মেনে নেওয়ার জন্য। কেন প্রতিকি অর্থে মেনে নিবো? আমরা সরাসরি বলতে চাই, আমাদের ৩০ লক্ষ শহিদের বিনিময়ে এ দেশের স্বাধীনতা এসেছে, নতুন একটি সূর্য উদিত হয়েছে। সুতরাং ত্রিশ লক্ষ শহিদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই।
পরিচিতি : ভিসি, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি/ মতামত গ্রহণ : তাওসিফ মাইমুন / সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ